• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

সরকারি গাড়ির অপব্যবহার বন্ধে দৃশ্যমান পদক্ষেপ নিন

| ঢাকা , শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০

একশ্রেণীর আমলা সরকারি গাড়ির অপব্যবহার করেই যাচ্ছে। সুদমুক্ত ঋণের সুবিধা নিয়ে তারা একদিকে গাড়ি কিনেছে, অন্যদিকে পরিবহন পুলের গাড়ির ব্যবহার করছে। এমনও অনেক আমলা আছেন যারা ঋণ নিয়েছেন ৩০ লাখ টাকা আর গাড়ি কিনেছেন ৫০-৬০ লাখ টাকায়। পরিবহন পুলের গাড়িকে ‘অব্যবহৃত’ দেখিয়ে তা ব্যবহার করছেন, ইচ্ছেমতো গাড়ির জ্বালানি ও রক্ষণাবেক্ষণ খরচ তুলছেন। বারবার নির্দেশনা দিয়েও সরকারি গাড়ির অপব্যবহার রোধ করা যাচ্ছে না। গত বুধবার অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে গণমাধ্যমগুলো গত বৃহস্পতিবার প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

কীভাবে রাষ্ট্রীয় সম্পদ ভোগ আর জনগণের অর্থ লুট করা যায়- একশ্রেণীর আমলা সবসময় এই ফিকির করেন। বিনাসুদের ঋণে গাড়ি কিনেও তারা সন্তুষ্ট নন। দলেবলে পরিবহন পুলে গাড়ি নিচ্ছেন, আয়েশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সেই আয়েশের অর্থও রাষ্ট্রের কোষাগার থেকে আদায় করছেন। সুযোগ-সুবিধা আদায় করার এই ওস্তাদদের বিরুদ্ধে কখনো কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না। তাদের জবাবদিহি আদায় করা হয় না। দু’দিন পরপর শুধু গাড়ির অপব্যবহার না করার নির্দেশনা দেয়া হয়। মাঝে মধ্যে কর্তৃপক্ষ সেই নির্দেশনাকে ‘কঠিন’ করে জারি করেন। বাস্তবে কঠিন বা তরল কোন নির্দেশনাই বাস্তবায়ন হয় না। বরং সুদমুক্ত ঋণ দেয়ার মতো অন্যায় সুবিধা দেয়া হয়। ৩০ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে একজন আমলা ৫০-৬০ লাখ টাকার গাড়ি কেনেন কীভাবে, সেটা সরকার খতিয়ে দেখে না।

আমলাদের গাড়িবিলাসের কারণে একদিকে রাষ্ট্রের অর্থ-সম্পদের অপচয় হচ্ছে, অন্যদিকে জরুরি অনেক প্রকল্পের কাজ গতি হারাচ্ছে। প্রকল্প সংশ্লিষ্ট অধিকারযুক্ত কর্মকর্তারা গাড়ি পাচ্ছেন না। অথচ একশ্রেণীর আমলা একাধিক গাড়ি ব্যবহার করছেন। এইশ্রেণীর আমলা দিয়ে দেশ ও দশের কখনো উপকার হয়নি, আর কখনো হবেও না। আমরা বলতে চাই, সরকারি গাড়ির অপব্যবহার বন্ধে শুধু নির্দেশনা দিলে চলবে না। কারা গাড়ির অপব্যবহার করছে তাদের চিহ্নিত করে একটি তালিকা প্রকাশ করতে হবে। তাদের কাছ থেকে অবিলম্বে গাড়ি ফেরত নিতে হবে। অনৈতকভাবে যারা গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণ, জ্বালানি খরচের নামে যে টাকা তুলেছেন সেটা সুদে-আসলে আদায় করতে হবে। আমলারা ৫০-৬০ লাখ টাকায় গাড়ি কিনলেন কীভাবে সেটা খুঁজে দেখতে হবে। সরকারি গাড়ির অপব্যবহার বন্ধে আমলাদের জবাবদিহিতা কঠোরভাবে আদায় করতে হবে। এ বিষয়ে সরকার দৃশ্যমান পদক্ষেপ নেবে- সেটা আমাদের আশা।