• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১২ শ্রাবন ১৪২৮ ১৬ জিলহজ ১৪৪২

বরিশালে

সংবাদকর্মী ও পুলিশের সহায়তায় রাস্তায় পড়ে থাকা বৃদ্ধার ঠাঁই হলো হাসপাতালে

সংবাদ :
  • মানবেন্দ্র বটব্যাল, বরিশাল

| ঢাকা , বুধবার, ২৪ জুন ২০২০

image

করোনা সন্দেহে অসুস্থ আপন বৃদ্ধা পিসিকে (ফুফু) মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে পালিয়েছে ভাইয়ের ছেলে। উৎসুক জনতা সড়কের পাশে পড়ে থাকা বৃদ্ধাকে দেখতে ভিড় জমালেও তাদের মধ্যে সামান্য মনবতা দেখা না দেয়ায় বা বিবেক জাগ্রত না হওয়ায় চার ঘণ্টা পর সংবাদকর্মীদের তৎপরতায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে অসুস্থ বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। তবে সে করোনা সংক্রমিত কিনা তা নিশ্চত নয়। রক্তের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠিয়ে বৃদ্ধার চিকিৎসাও করছেন চিকিৎসকরা। হৃদয়বিদারক এই ঘটনাটি ঘটেছে বরিশাল-আগৈলঝাড়া-পয়সারহাট-গোপলগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের ফুল্লশ্রী বাইপাস বাসস্ট্যান্ড এলাকায়।

মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা ৭০ঊর্ধ্ব অসুস্থ বৃদ্ধা দীপু বালা সংবাদ কর্মীদের জানান, তার স্বামী ও বাবার বাড়ি আগৈলঝাড়া উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের আস্কর গ্রামে। স্বামী অশ্বিনী বালা ৩-৪ বছর আগে মারা গেছেন। তাদের কোন সন্তান নেই। মানুষের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। সর্বশেষ তিনি বরিশাল শহরের কাঠপট্টি রোডের ধীরেন সিকদারের বাসার গৃহকর্মী ছিলেন। ওই বাসায় কর্মরত অবস্থায় ৪-৫ দিন আগে শরীরে দুর্বলতা ও বার্ধক্যজনিত কারণে হঠাৎ অসুস্থ হন তিনি। গৃহকর্তা ধীরেন সিকদার স্থানীয়ভাবে ডাক্তার দেখিয়ে ওষুধ কিনে দেন। খবর দেয়া হয় তার গ্রামের বাড়িতে।

আস্কর গ্রামের বাড়ি থেকে তার ভাই মনোরঞ্জন সাহার ছেলে মিথুন সাহা সোমবার  বৃদ্ধা পিসিকে বরিশাল থেকে নিয়ে আগৈলঝাড়া বাইপাস সড়কের বাসস্ট্যান্ডে নামলেও সেখানেই ফেলে সটকে পরেন। বয়সের ভারে ন্যূব্জ ও দুর্বলতার কারণে চলাফের করতে না পারা দীপু বালাকে সাড়ে বারোটার দিকে সড়কের পাশে রেখে উধাও হয় ভাইপো। নড়াচড়া করতে না পেরে অসহায় অসুস্থ বৃদ্ধা সড়কের ওপরই শুয়ে পড়েন। রোদ আর বৃষ্টিতে সেখানেই ৪ ঘণ্টা কাটে তার।

সাড়ে বারোটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত সময় গড়িয়ে গেলেও আর দেখা মেলেনি ভাইপো মিথুনের। ভারি বৃষ্টি আসন্ন দেখে স্থানীয় সাংবাদিকরা বৃদ্ধা দীপু বালাকে সড়কের পাশে একটি হোটেলের বারান্দায় নিয়ে আশ্রয় দেন। সংবাদকর্মীরা বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানাকে অবহিত করলে ওসি ইন্সপেক্টর আফজাল হোসেনের নির্দেশে পুলিশের এসআই শাহজাহান তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে অসুস্থ বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করান। ওসি আফজাল হোসেনও হাসপাতালে ছুটে যান। হাসপাতালে অসুস্থ বৃদ্ধার সব ধরনের চিকিৎসা, খাদ্যসহায়তাসহ আনুষাঙ্গিক সুবিধা প্রদানের কথা জানান ওসি আফজাল। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বখতিয়ার আল মামুন সাংবাদিকদের জানান, বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, প্রাথমিকভাবে বৃদ্ধার করোনা উপসর্গ নেই বলে মনে হলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রয়োজনে তার করোনা পরীক্ষা করানো হবে।

ওসি মো. আফজাল হোসেন সংবাদ কর্মীদের বলেন, করোনা বা যেকোন রোগ মোকাবিলায় মানুষের বিবেক জাগ্রত হওয়া দরকার। বিশেষ করে বয়স্কদের প্রতি আলাদা সহানুভুতির মনোভাব থাকা প্রয়োজন। মানবিকতা বিবর্জিত হলে মাহামারী সংকট আরও ঘনীভূত হবে। বৃদ্ধার ভাইপোর অবহেলার বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেবার কথাও জানান তিনি।