• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

কালিয়াকৈরে

মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রীর গানম্যানের গুলিতে একজন নিহত

ঘাতক গ্রেফতার আইন অনুযায়ী বিচার হবে : মন্ত্রী

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, কালিয়াকৈর (গাজীপুর)

| ঢাকা , শনিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২০

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মো. শহিদ (৩০) নামে এক যুবককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর গানম্যান পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) কিশোর কুমার সরকারকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সাভারের আশুলিয়ার শিমুলিয়া থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

কালিয়াকৈর থানার ওসি আলমগীর হোসেন মজুমদার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কিশোরের কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহৃত সেভেন পয়েন্ট ৬২ মডেলের সরকারি পিস্তল ও ছয় রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে হত্যার প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১০টার দিকে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী ও গাজীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম মোজাম্মেল হকের বডিগার্ড এএসআই কিশোরের গুলিতে মো. শহিদ নিহত ও মো. মঈন উদ্দিন (৩২) নামে অপর একজন গুলিবিদ্ধ হয়। এরপর থেকেই তাকে ধরতে পুলিশের একাধিক দল মাঠে নামে।

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, খুনের দিন কিশোর আমার ডিউটি করেনি। একজন খুনি হিসেবে যে শাস্তি পাওয়ার কথা, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা সেই সব ব্যবস্থাই নিচ্ছে।

জানা যায়, মন্ত্রীর গানম্যান কিশোর কুমার (৩৫) কালিয়াকৈর উপজেলার কুতুবদিয়া গ্রামের নারায়ন কুমারের ছেলে। নিহত মো. শহিদ কালিয়াকৈর থানার সিমান্তবর্তী এলাকা টাঙ্গাইলের মির্জাপুর এলাকার আজগানা গ্রামের সবুর উদ্দিনের ছেলে। গুলিবিদ্ধ মো. মঈন উদ্দিন একই এলাকার (৩২)। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মন্ত্রীর গানম্যান কিশোর ও হতাহতরা পরস্পর বন্ধু।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আমীনুল ইসলাম বলেন, গানম্যানদের পোস্টিং বিশেষ শাখা (এসবি) থেকেই হয়। হত্যাকারী মন্ত্রীর বডিগার্ড এটি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

প্রায়শই তারা এলাকায় আড্ডা এবং নেশা করতেন। ওইদিন রাত পৌনে ১০টার দিকে কুতুবদিয়া এলাকার লায়ন হাবিবের একটি পতিত জমিতে তারা বসে আড্ডা দেয় এবং নেশা করে। ওই সময় নেশাগ্রস্ত হয়ে কোন বিষয় নিয়ে ঝগড়ার জের ধরে কিশোরের কাছে থাকা পিস্তল দিয়ে শহিদ ও মঈনকে গুলি করে। এতে শহিদের বুকের ডানপাশে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান এবং মঈনের পেটের এক পাশে গুলিবিদ্ধ হয়। গুলির শব্দ পেয়ে এলাকাবাসী ছুটে এলে কিশোর দৌড়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ আহত মঈনকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। নিহত শহিদের লাশ উদ্ধার করে কালিয়াকৈর থানায় নিয়ে রাখা হয়।

এদিকে গানম্যান কর্তৃক সংঘটিত হত্যাকাণ্ড ব্যক্তিগত দায়, আইন অনুযায়ী বিচার হবে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

তিনি বলেন, গানম্যান কিশোর কুমার কর্তৃক সংঘটিত হত্যাকাণ্ড কোনভাবেই মেনে নেয়া হবে না। হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানান এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে গানম্যানের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। এ সময় মন্ত্রী হত্যাকাণ্ডের শিকার মো. শহিদের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। গতকাল এক বিবৃতিতে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, গানম্যান কিশোর গত তিন দিন যাবত ডিউটিতে ছিল না। সরকারি অস্ত্র জমা না দিয়ে অপরাধ করা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়। কৃত অপরাধের শাস্তি তাকে অবশ্যই পেতে হবে। ইতোমধ্যে জনগণের সহায়তায় পুলিশ গানম্যান কিশোরকে অস্ত্রসহ গাজীপুর জেলার সীমানা হতে গ্রেফতার করায় পুলিশবাহিনী এবং স্থানীয় জনগণকে ধন্যবাদ জানান তিনি।