• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবন ১৪২৮ ১৩ জিলহজ ১৪৪২

করোনাভাইরাস

২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে আক্রান্ত সোয়া এক লাখেরও বেশি মানুষ

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , শনিবার, ০৬ জুন ২০২০

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে নতুন করে মহামারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ২৯ হাজার মানুষ। আর প্রাণ হারিয়েছে ৫ হাজারের বেশি। পাশাপাশি আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩২ লাখ ৪৪ হাজার ৫৭৪ জন। গতকাল শুক্রবার করোনার পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের পক্ষ থেকে দেয়া সর্বশেষ তথ্যে এ পরিসংখ্যান উঠে এসেছে। আল-জাজিরা, বিবিসি, রয়টার্স।

এমন পরিস্থিতির মধ্যে বিশ্বের ১৮৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫ লাখ ছাড়িয়েছে। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুসারে, গতকা শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ লাখ ৩২ হাজার ৯৮৫ জন। এছাড়া মারা গেছেন ৩ লাখ ৯১ হাজার ১৩৬ জন। সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইতোমধ্যেই বৈশি^ক এ মহামারীতে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু ঘটেছে দেশ উত্তর আমেরিকার দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ লাখ ৭২ হাজার আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৮ হাজার মানুষের। এরই মধ্যে গত বুধবারও ১ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। এদিকে রাশিয়া, ব্রাজিল ও যুক্তরাজ্য সংক্রমণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছে। করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত হয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। দেশটিতে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ৬ লাখ ১৪ হাজার। সেখানে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৪ হাজার মানুষের। মৃত্যুর সংখ্যায় দেশটি তৃতীয়। গত বৃহস্পতিবার ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ১৪’শ ৯২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৩১ হাজারেরও বেশি।

রাশিয়া আক্রান্তের দিক দিয়ে বিশ্বে তৃতীয়। গতকাল শুক্রবার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৪০ হাজার। তবে মৃতের সংখ্যা তুলনামূলক কম রাশিয়ায়। সেখানে করোনায় মারা গেছেন ৫ হাজার ৩৭৬ জন। মৃত্যুর সংখ্যায় বিশ্বে ১৪ তম রাশিয়া। এদিকে চতুর্থ সর্বোচ্চ আক্রান্ত দেশ যুক্তরাজ্য। দেশটিতে ২ লাখ ৮৩ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত। মৃতের সংখ্যার দিক দিয়ে দেশটি দ্বিতীয়। সেখানে করোনায় মারা গেছেন ৩৯ হাজার ৯৮৭ জন মানুষ।

মৃত্যুতে ইতালিকে ছাড়াল ব্রাজিল

সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এমন পরিস্থিতির মধ্যে লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে মৃতের সংখ্যা ৩৪ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ সংখ্যা ইউরোপে ভাইরাসের দাপটে অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ইতালির চেয়েও বেশি। বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস জানিত রোগ কোভিড-১৯ ব্র্রাজিলে কমপক্ষে ১ হাজার ৪৭৩ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে বলে দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। দক্ষিণ আমেরিকার এ দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যাও ৬ লাখ ১৪ হাজার ছাড়িয়েছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। এরই ধারাবিহকতায় গতকাল শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ব্রাজিলে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ৩৪ হাজার ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ তথ্যে এমন পরিসংখ্যান উঠে এসেছে। একই সময় পর্যন্ত ইতালিতে মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে ৩৩ হাজার ৬৮৯ জনের। ব্রাজিলে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টানা তিনদিন কোভিড-১৯ এ মৃত্যু আগের দিনের রেকর্ড ভেঙেছে। এদিকে ইউরোপের দেশগুলোতে লকডাউন শিথিলের পর হঠাৎই মৃত্যু ও সংক্রমণ বেড়েছে। যুক্তরাজ্যে ১৫ জুন থেকে কড়াকড়ি শিথিল করলেও, গণপরিবহনে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অপরদিকে ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে ১৫ শহরে ছুটির দিনে লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক।

৮৮০ কোটি ডলারের তহবিলের প্রতিশ্রুতি

বিশ্ব ভ্যাকসিন সম্মেলনে

অপরদিকে সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাজ্যের উদ্যোগে আয়োজিত বিশ্ব ভ্যাকসিন সম্মেলনে বিশ্বের ৩০ কোটি শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও কোভিড-১৯ মোকাবিলায় সহায়তার জন্য ৮৮০ কোটি ডলারের তহবিলের প্রতিশ্রুতি এসেছে। গত বৃহস্পতিবার গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন (গ্যাভি) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে এ তহবিলের প্রতিশ্রুতি আসে বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

২০২৫ সাল নাগাদ হাম, পোলিও ও ডিপথেরিয়ার মতো রোগের বিরুদ্ধে বিশ্বের দরিদ্রতম দেশগুলোর শিশুদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অবকাঠামো নির্মাণসহ স্বাস্থ্য সেবার সহায়তায় এ তহবিল ব্যয় হবে। এছাড়াও নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশগুলোকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের সুযোগ দিতে নতুন উদ্ভাবনী অর্থায়ন প্রকল্পের জন্য ৫৬ কোটি ৭০ লাখ ডলারের প্রতিশ্রুতি এসেছে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বৃহস্পতিবারের এ সম্মেলনে ৩৫ রাষ্ট্রপ্রধানসহ ৫২টি দেশের সঙ্গে বৈশ্বিক স্বাস্থ্য সংস্থা, বেসরকারি খাত, ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা যোগ দেন। এ সময় জনগণ বলেন, ‘আমাদের জীবনকালের সর্ববৃহৎ সাধারণ লক্ষ্য তথা বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য রোগের বিরুদ্ধে মানবতার বিজয় অর্জনে একসঙ্গে দাঁড়িয়েছি।’ ভ্যাকসিন সম্মেলন থেকে ৭৪০ কোটি ডলারের তহবিল সংগ্রহের লক্ষ্য থাকলেও প্রকৃত প্রতিশ্রুতি তা ছাপিয়ে গেছে।