• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবন ১৪২৮ ১৮ জিলহজ ১৪৪২

মারাত্মক ঝুঁকিতে চট্টগ্রাম বন্দর

২৪ জনের করোনা শনাক্ত

সংবাদ :
  • নিরুপম দাশগুপ্ত, চট্টগ্রাম ব্যুরো

| ঢাকা , সোমবার, ০১ জুন ২০২০

করোনা সংক্রামণের ঝুঁকিতে রয়েছে চট্টগ্রাম বন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। করোনাভাইরাসে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা কর্মচারী ও তাদের পরিবারের আরও ২৪ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গত শনিবার রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবের প্রকাশিত রিপোর্ট থেকে এ তথ্য জানা যায়। তাদের প্রত্যেকের নমুনা নেয়া হয়েছিল গত ২৭ মে বন্দর হাসপাতাল থেকে। আক্রান্ত ২৪ জনের মধ্যে তিনজন ছাড়া বাকি সবাই পুরুষ। তিন নারীর বয়স যথাক্রমে ৫০, ৪৯ ও ৬৫ বছর। অন্য পুরুষদের বয়স হচ্ছে যথাক্রমে- ৫৯, ৩১, ৪৩, ৪০, ৩৭, ৬২, ৫০, ৪০, ২৫, ৫৫, ৫৮, ৪৫, ৫১, ৫৪, ৫৭, ৪৫, ৬৬, ৩১, ২৬, ৬৮ ও ২৫ বছর।

এর আগে অফিস-আদালত সবকিছু বন্ধ থাকলেও আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য অব্যাহত রাখতে চট্টগ্রাম বন্দরের অপারেশনাল কার্যক্রম চলে আসছিল। বন্দরের ৬টি বিভাগের চার হাজারের বেশি শ্রমিক-কর্মচারী এ কাজে নিয়োজিত রয়েছে। করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় তাদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। বিষয়টি শ্রমিক নেতারা বন্দর প্রশাসনকে জানিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিতের অনুরোধের পাশাপাশি বেশকিছু প্রস্তাবও করেছেন।

করোনা সংক্রমণ রোধে জনসমাগম এড়িয়ে চলার কথা বলা হলেও বন্দরে হাজার হাজার মানুষ। শ্রমিক-কর্মচারীদের সুরক্ষা সরঞ্জামের অভাব রয়েছে। ফলে অনেকে কর্মস্থলে যেতে ভীত হলেও সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে সবাই কাজ করছেন। জাতীয় সংকটে কাজ করা এসব শ্রমিক-কর্মচারীর জন্য সুরক্ষা সরঞ্জাম, বিশেষ প্রণোদনা এবং ঝুঁকি ভাতা প্রদানসহ কয়েকটি প্রস্তাবও করেছেন সিবিএ নেতারা।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরে ১৫টি বিভাগে ৮ হাজার ৭০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। বর্তমানে কর্মরত প্রায় সাড়ে ৬ হাজার। অপারেশনাল কাজের সঙ্গে যুক্ত ৬টি বিভাগ ছাড়া অন্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছুটিতে আছেন। পরিবহন, নিরাপত্তা, মেরিন, যান্ত্রিক, বিদ্যুৎ ও হাসপাতালের প্রায় ৪ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছেন। তবে যাদের বয়স চল্লিশ বছরের বেশি তাদের ছুটি দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বন্দরের সচিব ওমর ফারুক বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বন্দরে কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। কয়েকজন শ্রমিক নেতা গতকাল বিষয়টি অবহিত করেছেন। একই সঙ্গে তারা সুরক্ষা সরঞ্জাম, প্রণোদনাসহ কয়েকটি বিষয়ে প্রস্তাব করেছেন।