• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাড় ১৪২৮ ৬ জিলকদ ১৪৪২

ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে দুই শিক্ষার্থীসহ ৩ জনের মৃত্যু

রংপুর নোয়াখালী চট্টগ্রামে আক্রান্ত ১০৬ জন

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , রোববার, ২৮ জুলাই ২০১৯

image

ডেঙ্গু আক্রান্ত শিশু হাসপাতালের করিডোরে -সংবাদ

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলছে। গতকাল ও শুক্রবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে কক্সবাজারে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী, ঢাকায় এক নারী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রয়েছে। গতকাল ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে ৬৮৩ জন। এর মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছে আড়াই শতাধিক রোগী।

বিভিন্ন হাসপাতালে জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের রক্ত পরীক্ষার দীর্ঘ লাইন পড়েছে। হাসপাতালগুলোতে বেড না পাওয়ায় অনেক রোগীকে বারান্দায় রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে আতঙ্ক আরও বেড়েই চলছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গতকাল বিকেল ৪টার দিকে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম নেয়ার পথে উখিংনু রাখাইন নামে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ছাত্রীর মৃত্যু হয়। উখিংনু ফার্মেসি বিভাগের ৪৮তম আবর্তন ও প্রীতিলতা হলের আবাসিক ছাত্রী ছিলেন।

উখেংনু রাখাইনের বাবা মংবা অং মংবা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থানকালেই ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হন উখেংনু। পরে তাকে বাড়িতে নিয়ে এলে জ্বর বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেয়ার পথে উখেংনুর মৃত্যু হয়। কক্সবাজার কেন্দ্রীয় শ্মশানে তার সৎকার করানো হয় ।

উখেংনুর সহপাঠী রিফাত খান বলেন, গত ১৭ জুলাই অসুস্থ অবস্থায় উখেংনুকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাই আমরা। সেখানে তার শারীরিক বিভিন্ন টেস্ট করালে ডেঙ্গু ধরা পড়ে।

এদিকে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে শুক্রবার রাত ১টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ীর মেয়ে রুমানা খানের (২৫) মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। রুমানা বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য মেহেরুল্লাহর মেয়ে এবং ঢাকার বেনাপোল সমিতির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য জামসেদ আলী খানের স্ত্রী।

রুমানার বাবা মেহেরুল্লাহ জানান, তার মেয়ে স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় থাকত। সেখানে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হলে পরিবারের সদস্যরা গত ১০ জুলাই তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করে। এরপর তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। গত শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। গতকাল সকালে রুমানার মরদেহ গ্রামের বাড়ি বেনাপোলে আনা হয়। জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এদিকে শুক্রবার রাতে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ফিন্যান্স বিভাগের শিক্ষার্থী ফিরোজ কবীর স্বাধীন।

ফিরোজের চাচাতো ভাই আনোয়ার হোসেন সাংবাদিকদের জানান, ডেঙ্গু আক্রান্ত্র হওয়ায় গত ১৮ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় ফিরোজকে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার রাতে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হয়। পরদিন শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জেলায় জেলায় ছড়িয়ে পড়ছে ডেঙ্গু রংপুর নোয়াখালী চট্টগ্রামে আক্রান্ত ১০৬ জন

ডেঙ্গু এখন শুধু রাজধানীতে সীমাবদ্ধ নেই, ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন জেলাগুলোতেও। রংপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় সাতজনসহ এ পর্যন্ত ২১ জন ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তবে জানা গেছে তাদের বেশির ভাগই ঢাকায় আক্রান্ত। চট্টগ্রামে নতুন করে ৬ জন নিয়ে এ পর্যন্ত ৫৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। নোয়াখালীতে এ পর্যন্ত ৩১ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৯ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

রংপুর জেলা বার্তা পরিবেশক জানান, ডেঙ্গুজ্বরের প্রকোপ রংপুরেও ছড়িয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যেই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ২১ জন ভর্তি হয়েছেন। এদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭ জন ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া আরও বেশ কয়েকজন রোগী ভর্তি হয়েছেন। পরীক্ষা করে নিশ্চিত হওয়ার পরেই তাদের আলাদা ওয়ার্ডে নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জায়গার সংকুলান না হওয়ায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের মেডিসিন বিভাগের বিভিন্ন ঘরে আলাদা করে রাখা হয়েছে। আক্রান্তদের বেশিরভাগই ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং করতে গিয়ে কিংবা চাকরিজীবী ও শিক্ষার্থী তারা সেখানে আক্রান্ত হওয়ার পর বাড়িতে চলে আসেন এরপর রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রাম মহানগরীতে নতুন করে আরও ৬ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫ জন এবং বেসরকারি হাসপাতাল সিএসসিআরে ১ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত চট্টগ্রামে ৫৪ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। গতকাল বিকেলে এ তথ্য জানিয়েছেন চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী। এদিকে ১৪টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা করবে সিভিল সার্জন কার্যালয়ে। এজন্য ঢাকা থেকে রক্ত পরীক্ষার কিট, রিএজেন্টসহ চিকিৎসাসামগ্রী আনা হচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ডেঙ্গু নিশ্চিত হওয়ার ক্ষেত্রে তিনটি পরীক্ষা করাতে হয়। এর মধ্যে দ্রুত ডেঙ্গু শনাক্ত হয় এনএস-১ পরীক্ষার মাধ্যমে। কিন্তু কিট এবং রিএজেন্ট সরবরাহ না থাকার কারণে এনএস-১ পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না সরকারি হাসপাতালে। তাই রোগীরা বাধ্য হয়ে বেসরকারি ল্যাব থেকে পরীক্ষা করাচ্ছেন।

নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, সারা দেশের মতো নোয়াখালীতেও ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়ছে। এ পর্যন্ত ৩১ জন ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৯ জন নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

নোয়াখালী হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৯ জন এ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। ভর্তিকৃতরা হচ্ছেনÑ সুজন (২৩) এওয়াজবালিয়া, সদর, নূর আলম (২১) সেনবাগ, মিরাজ (২৪) লক্ষ্মীপুর, কাউচার (২৮) সেনবাগ, সাইফুর রহমান (২০) চরজব্বার, সুবর্ণচর, মাইন উদ্দিন (২৫), রসুলপুর বেগমগঞ্জ, শওকত (২৪) পদিপাড়া, সোনাইমুড়ী নাইম হোসেন (১৬) সোনাইমুড়ী, রাহাত (১৬) দেলিয়াই, চাটখিল, অন্য আক্রান্তরা জেলার বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।