• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবন ১৪২৮ ১৮ জিলহজ ১৪৪২

একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি এখনই জারি হচ্ছে না

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০১ জুন ২০২০

প্রতিবছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশের এক সপ্তাহ পরে একাদশ শ্রেণীতে (এইচএসসি) ভর্তি কার্যক্রম শুরু হলেও এবার তা হচ্ছে না। শিক্ষা বোর্ডগুলো আগামী ৬ জুন থেকে অনলাইনে কলেজ ভর্তি শুরু করার প্রস্তুতি নিলেও তা এখন অনিশ্চিত। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হলে সহসাই এইচএসসিতে ভর্তি সংক্রান্ত কোন বিজ্ঞপ্তি জারি করা হচ্ছে না। সামাজিক দূরত্ব কার্যকরের লক্ষ্যে এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এদিকে অনিশ্চয়তা পরেছে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষাও। কবে শুরু করা যাবে তা নিয়েই উদ্বেগে রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ড।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আপাতত করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তাছাড়া ১৫ জুন পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার ঘোষণা আছে। ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গতকাল বলেন, ‘প্রতি বছর দেখা যায় ভর্তির ফল প্রকাশের পর বোর্ডে দৈনিক ৪-৫ হাজার শিক্ষার্থীর আসা-যাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা অসম্ভব হয়ে পড়তে পারে। সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে ভর্তির বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। পরিস্থিতির দিকে আমরা নজর রাখছি।’

এর আগে আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক কমিটি আগামী ৬-৭ জুন থেকে অনলাইন ভর্তি কার্যক্রম শুরুর প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। এতে ৬-৭ জুন থেকে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম ৫০ দিনের মধ্যে শেষ করার প্রস্তাব করা হয়। তিনটি ধাপে আবেদন গ্রহণ ও ফল প্রকাশ করার কথা বলা হয়।

এদিকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি অনুকূলে না আসা পর্যন্ত এইচএসসি পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি গতকাল বেলা ১১টায় ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সময় এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এবারের এইচএসসি পরীক্ষা ১ এপ্রিল শুরু হওয়ার কথা ছিল। সব প্রস্তুতিও সম্পন্ন করে রেখেছিলাম। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে সে পরীক্ষা গ্রহণ সম্ভব হয়নি। কারণ এখানে ব্যাপক পরিমাণ শিক্ষার্থী, পুরোপুরি গণপরিবহন চালু হতে হবে।’

পরীক্ষা কেন্দ্রে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা সম্ভব না-মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, ‘তাহলে আমাদের পরীক্ষা কেন্দ্রের সংখ্যা বহুগুণ বৃদ্ধি করতে হবে। এসব কিছু না করতে পারলে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি ব্যাপকভাবে থেকে যাবে। কোনভাবেই এ ঝুঁকি এ মুহূর্তে নেয়া সম্ভব নয় বলে আমরা মনি করি। সে কারণে করোনা পরিস্থিতি আরও অনুকূল না হওয়া পর্যন্ত আমরা এইচএসসি পরীক্ষা নিতে পারছি না। যখনই আমরা মনে করব পরীক্ষা নেয়ার মতো পরিস্থিতি হয়েছে তখনই অন্তত পক্ষে দুই সপ্তাহ সময় দিয়ে পরীক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’