• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮ ২৬ রমজান ১৪৪২

প্রধানমন্ত্রীর কাছে কনকচাঁপার আহ্বান

    সংবাদ :
  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • | ঢাকা , শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২০

image

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের বিপর্যস্ত অবস্থায় এখন বাংলাদেশও বিপর্যস্ত। দিন দিন বাংলাদেশেও করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। নিজেকে করোনা থেকে নিরাপদে রাখার জন্য সরকারি নির্দেশ মেনে স্বামী, সন্তান নিয়ে দীর্ঘ একমাস যাবত রাজধানীর শান্তিনগরে নিজগৃহে নিরাপদে অবস্থান করছেন কনকচাঁপা। কিন্তু প্রায়শই মায়ের জন্যও মনটা ব্যাকুল হয়ে উঠে। কারণ তার মা থাকেন রাজধানীর মাদারটেকে। চাইলেই এখন আর সেখানে যেতে পারছেন না তিনি। আবার এই দেশের সাধারণ মানুষের কথা মনে করেও এক চাপা কষ্টে আছেন তিনি। কনকাচাঁপা করোনার আগামীদিনের ভয়াবহতা নিয়ে দেশের মধ্যে দুর্ভিক্ষ প্রতিরোধে আগেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নজরদারির বিশেষ আহ্বান করেছেন। কনকচাঁপা বলেন, ‘এই মহামারী করোনার পরে পৃথিবীতে কি অবস্থা দাঁড়াবে তা ভাবাই যায়না। সত্তর দশকের দুর্ভিক্ষ খুব ছোট ছিলাম বলে কিছু বুঝিনি কিন্তু একটু একটু মনে আছে। মানুষ ভাত রেঁধে তার ফ্যান বা মাড় রেখে দিতো দরিদ্রদের জন্য। চাল বেঁছে খুঁদ রেখে দিতো তাদের জন্য। কারণ নিজের পাতে থেকে খাবার দেয়ার মতো বাড়তি খাবার কারো ছিলো না। আমার বিশ্বাস আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সত্যিকার সদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও চালচোরের জ্বালায় সব মানুষ সঠিক ভাবে সাহায্য পাবে কিনা সন্দেহ আছে। তবে তিনি যদি মায়ের মমতা দিয়ে আরও কঠিন ভাবে নজরদারি করেন তবে ইনশাল্লাহ দুর্ভিক্ষ হবে না।’ কনকচাঁপা তার পরিবারের এবং আশেপাশের মানুষের তথা পুরো সমাজের স্বার্থে একমাস আগেই পুরোপুরি কোয়ারেন্টাইনে চলে গিয়েছিলেন। তিনি একটি এ্যাপের মাধ্যমে কয়েকটি অর্গানাইজেশনের সঙ্গে এবং কিছু মানুষ যারা হাত পাততে পারছেনা সামাজিক লজ্জায় তাদের পাশে তারই সাধ্যমতো নীরবে দাঁড়িয়েছেন। কনকচাঁপা আরও বলেন, ‘শুধু সরকারের দিকে চেয়ে বসে না থেকে নিরবে সরবে মানুষের পাশে দাঁড়ানো শুরু করুন। দান করে ছবি দিলে কোন অসুবিধা নাই কারণ আপনার দানে সহায়তায় অন্য কোন অলস ধনীর ইচ্ছা জাগতে পারে। এই ইচ্ছা জাগিয়ে তুলতে পারাই একজন চেঞ্জমেকারের কাজ।’