• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

সেতুহীন দুই কিমি. সড়ক নির্মাণের খবরে হতাশ মানুষ

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, দশমিনা (পটুয়াখালী)

| ঢাকা , রোববার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

দশমিনা (পটুয়াখালী) : চরবোরহান ইউপিতে ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাঁকো পারাপার হচ্ছেন এলাকাবাসী -সংবাদ

উপজেলার চরবোরহানে ২ কিলোমিটার হেরিংবন্ড রাস্তার কাজ শুরু হবে জেনেও হতাশ ইউনিয়নবাসী। কারণ এই ১৩ কিলোমিটার প্রধান সড়কের মধ্যে লোকমান গাজীর খাল ও দক্ষিণ চর শাহজালাল চাঁদপুরাখালসহ ৩টি খালে কোন সেতু নেই। প্রতিনিয়ত জীবন ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাকো দিয়ে ৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১টি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৩ শতাধিক শিক্ষার্থীসহ হাজারো ইউনিয়নবাসীকে পার হতে হয়। বর্ষাকালে খালে পানির স্রোতে মাঝে মাঝে বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে গেলে ঘরবন্দি হয়ে পড়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষজন। চরাঞ্চলের কৃষকদের উৎপাদিত পণ্য হাটে-বাজারে নিতে কিংবা অসুস্থ কোন রোগীকে চিকিৎসার জন্য নিতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়। পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার নবগঠিত ৭নং চরবোরহান ইউনিয়নের কার্যক্রম ২ বছরের অধিক সময় অতিক্রম করলেও রাস্তাঘাটের তেমন উন্নতি হয়নি। ইউনিয়নের লঞ্চঘাট থেকে শুরু করে চরশাহজালাল খেয়াঘাট পর্যন্ত ১৩ কিলোমিটার রাস্তার মধ্যে ৩ কিলোমিটার কার্পেটিং করা হয়। বাকি রাস্তা দিয়ে চলাচলে চরাঞ্চলবাসীর দুর্ভোগের যেন শেষ নেই। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নজির আহমেদ সরদার বলেন, ইউনিয়নে এখন ১৪ হাজারের বেশী মানুষ বসবাস করছে। ইউনিয়নের একমাত্র সড়ক চরবোরহান লঞ্চ ঘাট থেকে চরশাহজালাল খেয়াঘাট পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ১৩ কিলোমিটার সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজারো মানুষ চলাচল করে। কিন্তু এই রাস্তার ০৩টি খালে কোন সেতু না থাকায় ইউনিয়নবাসীকে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে এলাকাবাসীর দাবী, যাতে ৩টি খালে অতি দ্রুত চলাচলের জন্য ব্রীজের ব্যবস্থা করা হয়।