• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

প্রাথমিকে মাতৃভাষা শিক্ষায় আদিবাসী শিক্ষক নিয়োগ দাবি

সংবাদ :
  • জেলা বার্তা পরিবেশ, রাজশাহী

| ঢাকা , সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০

সকল আদিবাসী শিশুদের জন্য প্রাথমিক স্তরে নিজ মাতৃভাষায় শিক্ষা ব্যবস্থা চালু এবং আদিবাসী শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে গতকাল শনিবার সকালে নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক তরুন মুন্ডা, রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয় শাখার সভাপতি রতিশ টপ্য, রাজশাহী কলেজ শাখার সভাপতি সাবিত্রী হেমব্রম, কোষাধ্যক্ষ অনিল রবিদাস, দফতর সম্পাদক পলাশ পাহান প্রমুখ। এছাড়াও সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বিমলচন্দ্র রাজোয়াড়, সহ-সাধারণ সম্পাদক গনেশ মার্ডি, দফতর সম্পাদক সুভাষচন্দ্র হেমব্রম, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভূতিভুষণ মাহাতো, আদিবাসী যুব পরিষদ জেলা কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক উপেন রবিদাস, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ নিয়ামতপুর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অজিত মুন্ডা প্রমুখ। আরও বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট প্রশান্তকুমার সাহা, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির রাজশাহী সভাপতি শাহাজাহান আলি বরজাহান, ন্যাপ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান খান, নবজাগরণ ছাত্র সমাজের উপদেষ্টা তামিম সিরাজী প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, সরকার আদিবাসীদের ৬টি ভাষায় প্রাথমিক স্তরে শিক্ষাব্যবস্থা চালু করলেও স্কুলগুলোতে আদিবাসী শিক্ষক নিয়োগ দিতে পারেনি। উত্তরবঙ্গের একটি বহুল ব্যবহৃত আদিবাসী ভাষা হল সাদরি। কিন্তু যেসব স্কুলে সাদরি ভাষায় শিক্ষা ব্যবস্থা চালু আছে। সেখানে আদিবাসী শিক্ষক ছাড়াই বাঙালী শিক্ষক দিয়ে পাঠদান চলছে। এতে আদিবাসী কোমলমতি শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাগ্রহণে বিভ্রান্ত হচ্ছে। মানববন্ধনে সরকার অতিদ্রুত এই সকল স্কুলে আদিবাসী শিক্ষার্থীদের জন্য আদিবাসী শিক্ষক নিয়োগ প্রদানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবি জানানো হয়। একইসঙ্গে যে সকল স্কুলে এখনও আদিবাসী ভাষায় প্রণীত বই বিতরণ করা হয়নি। সেখানে আদিবাসী ভাষায় প্রণীত পাঠ্যপুস্তক দ্রুত বিতরণের দাবি জানান। বক্তারা আরও বলেন, সরকার এসডিজি বাস্তবায়ন করার প্রয়াস নিলেও এসডিজির যে স্লোগান ‘কাউকে পেছনে ফেলে নয়’- এটার সঠিক বাস্তবায়ন হবে না, যতক্ষণ আদিবাসীদের উন্নয়ন এবং এদের অস্তিত্বের ওপর গুরুত্ব না দেয়া হবে।