• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

ড্রেজারে খালের মাটি বিক্রি ঝুঁকিতে ফসলি জমি বাড়িঘর

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, চরফ্যাশন (ভোলা)

| ঢাকা , বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

চরফ্যাশন (ভোলা) : খোদেজাবাগের আমিরুদ্দির খালে এভাবে ড্রেজারে মাটি কাটায় ভেঙে পড়ছে চারপাশের ফসলি জমি -সংবাদ

চরফ্যাশনের আসলামপুর ইউনিয়নের খোদেজাবাগ গ্রামের আমিরুদ্দির খালে ড্রেজার বাসিয়ে মাটি কেটে বিক্রির ফলে খালসংলগ্ন ফসলি জমি, পাকারাস্তা এবং বসতবাড়ি তলিয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে পড়েছে। এনিয়ে গ্রামজুড়ে ক্ষতির মুখে থাকা মানুষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক মো. শাহজাহান অভিযোগ করেন, আসলামপুর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার নসু মিয়া ড্রেজার দিয়ে আমিরুদ্দির খালের মাটি বিক্রি করছে। প্রায় ১৫ দিন ধরে মাটি কাটার ফলে খালের আশপাশের ফসলি জমি, বসতবাড়ি এবং পাকারাস্তায় ধ্বস শুরু হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির মালিক ইব্রাহীম জানান, বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানকে জানিয়েও কোন প্রতিকার নেই। ফলে ঝুঁকির মুখে পড়া পরিবারগুলোর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে ড্রেজারের চালক (মিস্ত্রী) রহিম উদ্দিন জানান, মালিক নসু মেম্বারের নির্দেশে খালের মধ্যে এই ড্রেজার বসানো এবং চালানো হচ্ছে। সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি টের পেয়ে ড্রেজার মালিক নসু মেম্বার পালিয়ে যান এবং বক্তিগত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ করে দেন। ফলে তার বক্তব্য জানা যায়নি। মাটির ক্রেতা খোদেজাবাগ গ্রামের কবির হোসেন জানান, ৩৬ হাজার টাকা দিয়ে নসু মেম্বারের কাছ থেকে পুকুর ভরাটের জন্য ৩৬ হাজার মাটি কিনেছি। ভরাট করার কাজ প্রায় শেষ। ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ প্রসঙ্গে স্থানীয় চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম জানান, মাটি কাটার জন্য নিষেধ করেছি। কিন্ত নসু মেম্বার নিষেধ মানছে না। ফলে ক্ষতিগ্রস্তদের উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে যেতে বলেছি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রুহুল আমিন জানান, খাল কেটে মাটি বিক্রির অধিকার ব্যক্তি বিশেষের নেই। ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।.