• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮ ২৯ রমজান ১৪৪২

জামালপুরে পতিতাপল্লীতে মাদকবিরোধী অভিযানে হামলা

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, জামালপুর

| ঢাকা , বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

জামালপুরে রানীগঞ্জ পতিতাপল্লীতে মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর হামলা, যৌনকর্মীদের মারধর, ফাঁকা গুলিসহ গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় পরস্পর বিরোধী বক্তব্য দিয়েছে যৌনকর্মী ও পুলিশ প্রশাসন। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ ও আনসার বাহিনী নিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু আব্দুল্লাহ খানের নেতৃত্বে মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে ঘটেছে এ ঘটনা।

যৌনকর্মীদের দাবি, ‘তল্লাশির নামে বেধড়ক মারধর করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এ সময় ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করা হয়।’ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দাবি, যৌনকর্মীরা মাদকবিরোধী অভিযানে হামলা ও পুলিশের একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করেছে। তবে কোন গোলাগুলির ঘটনা ঘটেনি। মাদকবিরোধী অভিযানে হালিম (৪০) ও আলম নামে দু’জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। আলমের বিরুদ্ধে কোন তথ্য প্রমাণ না থাকায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হালিমকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ডাদেশ দেন আদালত। ঘটনার পর দুপুর দেড় টার দিকে জামালপুর প্রেসক্লাবে এসে অভিযোগ করেন, মারধরের শিকার যৌনকর্মীরা। তারা বলেন, আমরা রাস্তায় এলে আমাদের মারধর করা হয়। টেনেহিচঁড়ে জামাকাপড় ছিঁড়ে ফেলা হয়। কিল, ঘুষি, বন্দুকের নল দিয়ে আঘাত করা হয়। এ সময় যৌনপল্লীর ৩ নম্বর বাড়ির রজু, ৪ নম্বর বাড়ির জানু ও বিলকিস, ৫ নম্বর বাড়ির নাসিমা, ৮ নম্বর বাড়ির জুঁই ও ৯ নম্বর বাড়ির কবিতা আহত হন। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মো. হুমায়ূন কবীর ভূঁইয়া বলেন, ‘পতিতাদের অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। অভিযান চলাকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর হামলা চালিয়েছে পতিতারা। ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে তারা একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করেছে। মাদকবিরোধী অভিযানে পতিতাদের হামলা ও গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি যৌনকর্মীদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথাবার্তা বলেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় মামলা দেয়া হলে মামলা নেয়া হবে।