• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮ ২৮ রমজান ১৪৪২

সরকারি বিধি-নিষেধ উপেক্ষা

দশমিনায় ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলছে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসা

সংবাদ :
  • আহাম্মদ ইব্রাহিম অরবির, দশমিনা (পটুয়াখালী)

| ঢাকা , শনিবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২০

image

দশমিনা (পটুয়াখালী) : এভাবেই সাজিয়ে রাখা হয়েছে এলপি গ্যাস সিলিন্ডার -সংবাদ

পটুয়াখালীর দশমিনায় উপজেলায় লাইন্সেস ও অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছাড়াই চলছে গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবসা। আইনের তোয়াক্কা না করে শুধু ট্রেড লাইসেন্স নিয়েই উপজেলার প্রতিটি বাজারেই চলছে এ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ ব্যবসা। অবৈধ গ্যাসের ব্যবসা স্থানীয় প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। নিয়মবহির্ভূতভাবে সিলিন্ডার গ্যাসের ব্যবসায় চললে যে কোনো মুহূর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। এ ছাড়াও অতিরিক্ত দামে সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার বিকাশ এজেন্টে পয়েন্টে, চায়ের দোকান, মুদির দোকান থেকে শুরু করে মুদি মনোহারি, ওষুধ ও ইলেকট্রনিক্সসহ প্রায় সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লাইসেন্স ছাড়া ঝুঁকিপূর্ণভাবে সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রি করা হচ্ছে। উপজেলা সদর ছাড়াও ঠাকুরেরহাট, বড়গোপালদী, আরজবেগী, আউলিয়াপুর, রনগোপালদী বাজার, হাজীর হাট, গছানী, আমতলা, আয়শার হাট বাজারসহ সড়কের পাশে অনুমোদন ছাড়াই অনেক ব্যবসায়ী আইনকে বৃদ্ধাঙ্গগুলি দেখিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রি করে আসছে। এ দোকানগুলোয় নেই প্রাথমিক বিপর্যয় রক্ষায় ড্রাই পাউডার ও সিও ২ সরঞ্জামসহ অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা। এতে সাধারণ জনগণের পাশাপাশি ক্ষুব্ধ অনুমোদন পাওয়া ব্যবসায়ীরাও। দোকানগুলোর সামনে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয় গ্যাস সিলিন্ডারগুলো। যার ফলে পথচারীরা ঝুঁকি চলাচল করতে হচ্ছে। যে কোন সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা এমন আশঙ্কা সাধারণ পথচারীদের। এ ছাড়াও একাধিক ক্রেতা অভিযোগ করে জানান, উপজেলায় গ্যাসের যে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ক্রেতাদের জিম্মি করে ব্যবসায়ীরা তার চেয়ে বেশি নিচ্ছে। ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বোতল প্রতি ৫০-১শ’ টাকা বেশি নেয়। যার ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে ভুক্তভোগী ক্রেতাদের। এই ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা সহকারী কমিশনার ভূমি গলাচিপা মো. সুহৃদ সালেহীন জানান, দুর্ঘটনা এড়াতে এলপি সিলিন্ডার গ্যাস বিক্রির নীতিমালা প্রণয়ন ও লাইন্সেসবিহীন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে নিয়মের আওতায় আনা হবে।