• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ১০ মে ২০২১, ২৭ বৈশাখ ১৪২৮ ২৭ রমজান ১৪৪২

জ্যাক মার অ্যান্ট গ্রুপকে চেপে ধরেছে চীন সরকার

সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক

| ঢাকা , শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১

image

একের পর এক ঝামেলার মুখে পড়ছে বিশ্বের অন্যতম ইকমার্স সাইট আলিবাবার প্রতিষ্ঠা জ্যাক মার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অ্যান্ট গ্রুপ। সম্প্রতি এই প্রযুুক্তি জায়ান্টকে পুনর্গঠনে বাধ্য করছে চীন সরকার। সম্প্রতি অ্যান্ট গ্রুপের ৩ হাজার ৭০০ কোটি ডলার নিয়ে শেয়ারবাজারে যাত্রার আর্থিক মডেল নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে নিয়ন্ত্রকদের। এজন্য গত নভেম্বর থেকে জ্যাক মার এ ব্যবসায়িক সাম্রাজ্য নিয়ন্ত্রণে উঠেপড়ে লেগেছে চীন সরকার। একই সঙ্গে এই প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটিকে বিভিন্নভাবে জরিমানাও করা হয়েছে। বন্দোবস্তের শর্তে অ্যান্টকে একটি আর্থিক হোল্ডিং সংস্থা হিসেবে পুনর্গঠন করা হবে। এ পদক্ষেপ অন্যান্য বিধিনিষেধের পাশাপাশি সংস্থাটির লাভের ক্রমবর্ধমান প্রবণতা বাধাগ্রস্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। বিবিসি।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, একচেটিয়া বাজার দখলের অভিযোগে গত শুক্রবার অ্যান্ট গ্রুপের প্রতিষ্ঠান আলিবাবাকে রেকর্ড ২৮০ কোটি ডলার জরিমানা করে চীনা নিয়ন্ত্রক। পিপলস ব্যাংক অব চীনের এ পদক্ষেপ দেশটির দ্রুত বর্ধমান প্রযুক্তি প্লাটফর্মকে কঠোর নিয়ন্ত্রণমূলক তদারকি এবং ন্যূনতম মূলধনের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি তুলে ধরে। অ্যান্ট গ্রুপ চীনের বৃহত্তম পেমেন্ট সরবরাহকারী। গ্রুপের ডিজিটাল পেমেন্ট পরিসেবা আলিপেতে ৭৩ কোটিরও বেশি মাসিক ব্যবহারকারী রয়েছেন।

চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছে, একটি বিস্তৃত ও সম্ভাব্য পুনর্গঠন পকিল্পনার আওতায় অ্যান্টকে আলিপে এবং এর ক্রেডিট কার্ড ও ভোক্তাঋণ পরিসেবার মধ্যে অনুচিত যোগসূত্র বাদ দিতে হবে। প্রতিষ্ঠানটির বিশালাকার গ্রাহক তথ্য ভা-ার প্রতিযোগীদের তুলনায় অন্যতম প্রধান সুবিধা হিসেবে দেখা হচ্ছে। নিয়ন্ত্রণমূলক ব্যবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে অ্যান্ট একটি ব্যক্তিগত ক্রেডিট রিপোর্টিং সংস্থা প্রতিষ্ঠা করতেও সম্মত হয়েছে। এটা ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা জোরদার করবে এবং কার্যকরভাবে ডাটা অপব্যবহার রোধ করবে। অ্যান্টকে তার ঋণ ও পণ্যের ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণ, প্রধান তহবিলের তারল্যের ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণ এবং এর বিশাল ইয়ুবাও মানি মার্কেট তহবিলের আকার ছোট করতে বলা হয়েছে। সংস্থাটি করপোরেট গভর্ন্যান্সের উন্নতি করতে এবং ঋণ, বীমা ও সম্পদ পরিচালনায় অবৈধ আর্থিক কার্যক্রম সংশোধন করতে সম্মত হয়েছে। এ পদক্ষেপ প্লাটফর্মের অর্থনীতির আর্থিক নিয়ন্ত্রণের উদাহরণ স্থাপন করেছে বলে রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে।

এর আগে তদারক সংস্থার সমালোচনা করার পরই জ্যাক মার ওপর এমন খড়গ নেমে আসে। তদারকরা উদ্ভাবনকে দমিয়ে রাখছেন বলে অভিযোগ তোলার পর অক্টোবরে অ্যান্ট গ্রুপ নিয়ে তদন্ত শুরু হয়। কয়েক দিন পরই তদারক সংস্থা অ্যান্ট গ্রুপের শেয়ারবাজারের নিবন্ধন বাতিল করে দেয়। চীনের স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর মার্কেট রেগুলেশন (এসএএমআর) জ্যাক মার ই-কমার্স প্লাটফর্ম আলিবাবা নিয়ে তদন্ত শুরু করে।

শুক্রবার ২৮০ কোটি ডলার জরিমানা করার পরও চীনের বৃহত্তম এ ই-কমার্স প্লাটফর্মের শেয়ারদর ৮ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। বিনিয়োগকারীরা বিশ্বাস করছেন, এ জরিমানার মধ্য দিয়েই আলিবাবা নিয়ে তদন্তের অবসান ঘটতে চলেছে।

প্রযুক্তি জায়ান্টের প্রতি এমন মনোভাবের পর তদারক সংস্থা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের বিষয়েও কঠোর হতে যাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। গত মাসে এসএএমআর জানিয়েছিল, ১০টির বেশি প্রতিযোগিতা নীতি লঙ্ঘনকারী এক ডজন সংস্থাকে জরিমানা করেছে। এর মধ্যে টেনসেন্ট, বাইদু, ডিডি চুচিংসহ চীনের বৃহত্তম প্রযুক্তি সংস্থাগুলো রয়েছে। আলিবাবাকে বিশাল অঙ্কের এ জরিমানা চীনের ইতিহাসেও সর্বোচ্চ। এর আগে ২০১৫ সালে প্রতিযোগিতা নীতি লঙ্ঘনের অভিযোগে ৯৭ কোটি ৫০ লাখ ডলার জরিমানার মুখোমুখি হয়েছিল কোয়ালকম। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফেইসবুক, গুগল, অ্যাপল ও অ্যামাজনের মতো প্রযুক্তি জায়ান্টগুলো জবাবদিহিতার মুখোমুখি হচ্ছে। তার মধ্যে আলিবাবাকে জরিমানার বিষয়টি চীন সরকারের সতর্কবার্তার মতোই মনে হচ্ছে।

তবে তদারক সংস্থার সঙ্গেও বেশ নমনীয় আলিবাবা। এক বিবৃতিতে আলিবাবা জানায়, তারা এ শাস্তি মাথা পেতে নিয়েছে এবং দৃঢ়তার সঙ্গে কমপ্লায়েন্সেস অনুসরণ করবে। এ নিয়ে আলোচনার জন্য একটি বৈঠকও করেছে সংস্থাটি।