• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

নতুন বছর, নতুন সরকার, নতুন দিন

সাঈদ চৌধুরী

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৯

২০১৯ সালের প্রথম দিন। নতুন একটি সকাল। তার সঙ্গে সঙ্গে নতুন সংসদ, নতুন সরকার। জাতি হিসেবে আমাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার জন্য এ নতুন বছর যেন নতুন দিগন্তের একটি সাদা শুভ্র রেখার উন্মোচন। আমরা প্রতিবারই চাই নতুন বছরের প্রথম দিন থেকে যেন নতুন এবং ভালো কিছু শুরু করতে পারি। এবার নতুন বছর শুরুর দিনটি পাঁচ বছরের আরেকটি মাইলফলক শুরুর দিন যা এদেশকে বিশ্বের বুকে আরও বেশি প্রভাবশালী হিসেবে প্রকাশিত করবে এটাই বড় প্রত্যাশা। টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের জন্য যে অবদানগুলো রেখেছেন তা কিন্তু বিবেচনায় না আনলে আপনাদের কাছে মনে হতেই পারে এত জনপ্রিয়তা কি করে সম্ভব!

তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ব্যাপক উন্নয়নের কারণে আপনি ঘরে বসেই সব জেনে যাচ্ছেন, যোগাযোগ রাখছেন তা কিন্তু এ সরকারের আমলেই হয়েছে। আমাদের থেকে তথ্যপ্রযুক্তিতে পিছিয়ে পাশের অনেক দেশই। অনেক দেশের মানুষের এখনও ঘরে পৌঁছায়নি বিদ্যুৎ। আর সেখানে আমরা বিদ্যুতায়নে প্রায় রফতানি করার কাছকাছি অবস্থানে পৌঁছে গিয়েছি। বড় অর্জনে ক্ষেত্রে পদ্মা সেতুর কথাটি যদি আনা হয় তবে দেখা যাবে একটি জনপদের উন্নয়নে এ সেতু একেবারে দেশের পুরো চিত্র পাল্টে দেয়ার মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায় রয়েছে। তৈরি পোশাকশিল্পে আমরা বিশ্বে এখন প্রথম হওয়ার কাছাকাছি অবস্থায় রয়েছি। এ কারণে গত কয়েক বছরে বিশ্বে অর্থনৈতিক চরম মন্দার সময়ও বাংলাদেশের অর্থনীতি ছিল গতিশীল। মানুষ এখন শিখতে চায়, শিক্ষা ক্ষেত্রে সরকারের সদিচ্ছা আর আন্তরিকতার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে। দুর্নীতির লেখচিত্রেও পরিবর্তন এসেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বড় জয় ছিল সমুদ্র বিজয়, বড় ত্যাগ ছিল রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রদান। এমনিভাবে দেখলে দেখা যাবে দেশের অর্থনৈতিক গতিশীলতার সঙ্গে সঙ্গে তরুণদের ভাবনাও ব্যাপক পরিবর্তন করা সম্ভব হয়েছে বর্তমানের সময়গুলোতে এবং তা এ সরকারেরই বড় অবদান।

আমরা আশাবাদী হয়ে এখন সামনের দিনগুলোতে আমাদের চাওয়াগুলো সরকারের কাছে জানাতে পারি এবং সবচেয়ে বড় বিশ্বাসের জায়গা হলো এ চাওয়াগুলোর প্রতিফলন আমরা দেখতে পাব কারণ বর্তমান সরকারপ্রধান জাতির জনকের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য উত্তরসূরি। নতুন বছর ও নতুন সংসদের প্রথম দিন থেকেই চাওয়া থাকবে আরও সমৃদ্ধ একটি বাংলাদেশ গঠনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ। অনেকগুলো সুন্দর ইশতেহারের সমাবেশ ছিল এবার। তার সঙ্গে কিছু বিষয় যোগ করে বলতে চাই আমাদের বাংলাদেশ যেভাবে এগুচ্ছে এখন এ বাংলাদেশের গতিশীলতার জন্য প্রয়োজন সব মানুষের একসঙ্গে কাজ করা। দুর্নীতি বন্ধে জিরো টলারেন্সের যে কথাটি এসেছে সে কথাটিকে বাস্তবায়ন করার আকুতি থাকবে সবার আগে। যদি সরকারি চাকরি আইনে সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফতারের জন্য সরকারের অনুমতির বিষয়টি তুলে দেয়া হয় তবে আইন প্রণয়ন ও দুর্নীতি বন্ধে ভালো একটি সিদ্ধান্ত হবে। নদী অর্থনীতির জন্য চাই নতুন কর্মপরিকল্পনা এবং দখল ও দূষণ রোধে চাই সরকারের একেবারে প্রথম দিন থেকেই জিরো টলারেন্স নীতি।

বিচারিক ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের আকুতির জায়গা রয়েছে। কেউ যেন বিনা বিচারে কখনও জেল না খাটে, কেউ যেন কোন আইনি হেনস্থার শিকার না হয় এবং আইনি সহায়তার ক্ষেত্রে আরও গতিশীলতা আসে এ ব্যপারে দৃষ্টি দিতে হবে। মানুষের আত্ম তৃপ্তির জায়গা ও নিরাপত্তার জায়গায় যদি সঠিক তদারকি হয় তবে এ বাংলাদেশ একটি উন্নত দেশ হয়ে উঠবে খুব সহজেই। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে থাকতে হবে আগের চেয়েও বেশি তৎপর।

শিক্ষা ক্ষেত্রে সব ধরনের উদ্যোগ সঠিকভাবেই এগুচ্ছে। শিক্ষা বিভাগে এবার এমন একজন মানুষকে দেখতে চাই যিনি তারুণ্যের নেতৃত্ব দিতে জানেন। পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের কলঙ্ক যেন সামনের দিন থেকে একেবারে দূরীভূত হয় এটাই বড় চাওয়া। নারীদের শিক্ষা জীবনকে স্থায়ীকরণ ও উচ্চশিক্ষা নিশ্চিতে কাজ আরও বাড়াতে হবে।

স্বনির্ভর দেশ গঠনে প্রয়োজন মেধার চাষ। মেধাকে বিকশিত করার জন্য বিজ্ঞান গবেষণায় আরও মনোযোগী হতে হবে। এ কারণে গবেষণায় আরও অর্থায়ন করবে সরকার এটা কামনা। সুন্দর বছরটির শুরু সুন্দর একটি সরকারের যাত্রার মাধ্যমে।

সুন্দর বাংলাদেশ গঠনে আমাদের দায়িত্বও কম নয়। আমরা শুধু নিজেকে উন্নয়নের মধ্যে সম্পৃক্ত করতে পারলে অন্যকে নিয়ে চিন্তার বিষয়টি কমে আসবে। জীবিকার জন্য কর্মক্ষেত্র বাড়ছে, শিক্ষার জন্য সুযোগ বাড়ছে, নারীদের স্বাধীনতা ও চলার ক্ষেত্রে নিরাপত্তা বেড়েছে সুতরাং এখন কেন তবে বসে থাকা। নিজের দায়িত্বে নিজেদের কাজের উন্নয়নে আসুন আমরা এক হই। সরকারের সঙ্গে সঙ্গে সব তরুণ মিলে গড়ে তুলি একটি সুন্দর ও গতিশীল অর্থনৈতিক ও সামাজিক আস্তরণ যেখানে প্রতিটি মানুষ তাদের আশা আকাক্সক্ষা নিয়ে বাঁচতে পারে।

নতুন সরকারকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি সবাইকে। একটি ভালো কাজ নিজে করুন এবং অন্যকে ভালো কাজে উৎসাহিত করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ায় নিজের সম্পৃক্ততাকে প্রকাশ করুন তবেই নতুন বছরে, নতুন সরকারে নতুন দিনের একটি দেশের স্বাদ আমরা পাব খুব অনায়াসেই।

[লেখক : রসায়নবিদ]