• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

শীত মোকাবিলায় হতদরিদ্রদের পাশে দাঁড়ান

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৯

উত্তরাঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত আছে। পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় গত বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৪ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াম রেকর্ড করা হয়। উত্তরাঞ্চলের অন্যান্য জেলায় মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ রয়ে যাচ্ছে। আরও কিছুদিন শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে বলে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন। শীতে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে, তাদের স্বাভাবিক জীবনযাপন ব্যাহত হচ্ছে। দেখা দিয়েছে শীতজনিত অসুখ।

শীতে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়ে হতদরিদ্র মানুষ। বিশেষ করে যারা গৃহহীন তাদের পক্ষে শীত মোকাবিলা করা কঠিন হয়ে পড়ে। কেবল শীতবস্ত্র দিয়ে তারা শীত নিবারণ করতে পারে না। দেশে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা কম নয়। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রোহিঙ্গা শরণার্থী। ক্যাম্পে অবস্থানরত রোহিঙ্গা শরণার্থীরাও শীতে কাবু হয়ে পড়েছে বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। শীত মোকাবিলায় তাদের মধ্যে কম্বলসহ বিভিন্ন শীতবস্ত্র বিতরণ করা জরুরি। কোন কোন স্থানে ইতোমধ্যে কম্বল ও শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। তবে এখানে হতদরিদ্র যেসব মানুষ কম্বল বা শীতবস্ত্র পায়নি তাদের মধ্যে দ্রুত তা বিতরণ করতে হবে।

শীতে সব শ্রেণীর মানুষকেই কম-বেশি মৌসুমি অসুখে ভুগতে দেখা যায়। শীত মৌসুমে ধুলাবালির প্রভাবে শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগের প্রকোপ বাড়ে। বিশেষ করে শিশু ও বৃদ্ধরা শীতজনিত অসুখের ঝুঁকিতে থাকে। শীতজনিত অসুখে অনেকে মারাও যায়। সচেতনতার অভাবে সাধারণ মানুষ শীতজনিত অসুখ মোকাবিলা করতে পারে না। মৌসুমি অসুখ সম্পর্কে সচেতন হলে দুর্ভোগ অনেক কমে। সরকার সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে। এটা অব্যাহত থাকতে হবে। পাশাপাশি শীতের অসুখ মোকাবিলায় হাসপাতালগুলোকে প্রস্তুত রাখতে হবে। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষ যেন সহজে চিকিৎসা ও বিনামূল্যে ওষুধ পায়, সেটা নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে যেন কোন অনিয়ম-দুর্নীতি না হয় সেটা কঠোরভাবে নিশ্চিত করতে হবে।

তীব্র শীতে হতদরিদ্র মানুষের জীবিকা ব্যাহত হয়। তাদের অনেকের পক্ষেই স্বাভাবিক কাজকর্ম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। এ কারণে হতদরিদ্র মানুষদের অর্থ সহায়তা বা ত্রাণ হিসেবে খাদ্য বিতরণ করা যেতে পারে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করে দেখবেÑ সেটা আমাদের প্রত্যাশা। সমাজের বিত্তবান মানুষসহ সব শ্রেণী-পেশার মানুষও হতদরিদ্রদের পাশে এসে দাঁড়াবেন- সেটা আমাদের বিশ্বাস।