• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে যথাযথ গুরুত্ব দিতে হবে

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

দেশে দুই কোটির বেশি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ কোন না কোন মানসিক রোগে আক্রান্ত। এদের ৯২ শতাংশ কোন চিকিৎসাই নেয় না। এ তথ্য জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য জরিপের (২০১৮-১৯)। জরিপে ১৩ ধরনের মানসিক রোগের তথ্য সংগ্রহ করা হয়। তাতে দেখা যায়, মানুষ সবচেয়ে বেশি ভোগে বিষণ্নতায়। নারীর চেয়ে পুরুষের বিষণ্নতা বেশি। অন্যদিকে গ্রামের চেয়ে শহরের মানুষ বেশি বিষণ্ন।

শারীরিক স্বাস্থ্য বলতে যেমন পুরো শরীরকে বোঝায় তেমনি মনের অনুভূতি, আবেগ, বোধ, চিন্তা সর্বোপরি মানসিক স্বাস্থ্যের অসুস্থতাকেই মানসিক রোগ বলা হয়। শারীরিক স্বাস্থ্যকে যেমন গুরুত্ব দেয়া হয়, তেমনি মানসিক স্বাস্থ্যও ঠিক ততটা গুরুত্ব দাবি করে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, কোন ব্যক্তিই নিজের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে খুব একটা চিন্তা করে না। এমনকি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায়, মানসিক অসুস্থতাকে কোন রোগ বা অসুস্থতা বলে গণ্য করা হয় না। অথচ সুস্বাস্থ্যের জন্য সুস্থ দেহ এবং মন দুটিরই দরকার।

শুধু ব্যক্তিপর্যায়ে নয়, সরকারি-বেসরকারি পর্যায়েও মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়টি এখন পর্যন্ত অবহেলিত। বর্তমানে মানসিক রোগের চিকিৎসায় যে জনবল আছে, তা অত্যন্ত অপ্রতুল। সমাজে মানসিক রোগী ও তার পরিবারের কোন মর্যাদা নেই। অজ্ঞতা, মানসিক রোগীর প্রতি বৈষম্য, স্টিগমাসহ বিভিন্ন কারণে মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টি গুরুত্বে আনা হয় না। মানসিক রোগের কারণে জনগণের কর্মদক্ষতা কমে যাচ্ছে, ফলে অর্থনৈতিক ক্ষতি হচ্ছে। এর ফলে মাদকাসক্তি, জঙ্গিবাদের বিস্তারসহ নানা সমস্যা তৈরি হচ্ছে।

মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে চিকিৎসা ব্যবস্থায় সরকারের সাহায্য-সহযোগিতা বাড়াতে হবে। বাস্তবতাকে স্বীকার করে সাধারণ জনগণকে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়টিতে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি পর্যায়ে এ নিয়ে আলোচনা বাড়ানো, স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে রোগীদের প্রবেশগম্যতা বাড়ানো, রোগী সুস্থ হলে তাদের মূলধারার কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত করা, সর্বোপরি মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

দক্ষ জনবল বাড়ানোর পাশাপাশি অবকাঠামো নির্মাণ, সমন্বিত চিকিৎসা পদ্ধতি গড়ে তোলা, প্রতিটি হাসপাতালে মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য বিশেষ ইউনিট ও শয্যার ব্যবস্থা এবং প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবায় মানসিক স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

  • সৌদি আরবে নারী গৃহকর্মী পাঠানো বন্ধ করুন

    কর্মরতদের ফিরিয়ে আনুন

    সৌদি আরবে নারী গৃহকর্মী পাঠানো বন্ধ করার দাবি করেছেন একাধিক সংসদ সদস্য।