• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

আদালতের নির্দেশ উপেক্ষা করছে মডার্ন গ্রুপ

নদী দখলদারদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন

| ঢাকা , শনিবার, ২১ মার্চ ২০২০

আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ফের মেঘনা নদী দখল করে মডার্ন গ্রুপ জেটি নির্মাণকাজ করছে। এর আগে সোনারগাঁ উপজেলার বারদী ইউনিয়নের নুনেরটেক এলাকার পার্শ্ববর্তী চর হাজী মৌজায় নদীর প্রায় সত্তর বর্গফুট জায়গা দখল করে একটি জেটি নির্মাণ করে প্রতিষ্ঠানটি। পরে প্রশাসনের বাধার মুখে কিছুদিন কাজ বন্ধ থাকে। সেই কাজ ফের শুরু করেছে মডার্ন গ্রুপ। আর আগের জেটির পাশে জায়গা দখল করে প্রতিষ্ঠানটি আরও একটি জেটির নির্মাণকাজ শুরু করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মডার্ন গ্রুপ কী করে নদী দখল করে সেটা একটা বড় প্রশ্ন। আমরা জানতে চাই, কোন জাদুশক্তিবলে তারা আদালতের নির্দেশনাকে অগ্রাহ্য করার দুঃসাহস পায়? জানা গেছে, প্রশাসনের বিধিনিষেধও তারা মানছে না। তাহলে এটাই ধরে নিতে হবে যে, মডার্ন গ্রুপ রাষ্ট্র ব্যবস্থার চেয়েও ক্ষমতাবান কিংবা রাষ্ট্র ব্যবস্থাই তাদের এ দুঃসাহসকে আসকারা দিচ্ছে।

বাংলাদেশকে বলা হয় নদীমাতৃক দেশ। একসময় জালের মতো সারা দেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অসংখ্য খরস্র্রোতা নদ-নদী ও খাল-বিল আমাদের জীবন-জীবিকা, সভ্যতা ও সংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ করলেও আজ সেগুলো জীর্ণশীর্ণ অথবা মরণাপন্ন অবস্থায় উপনীত হয়েছে। অনেক নদী ও খাল-বিল ইতোমধ্যে মানচিত্র থেকে হারিয়েও গেছে। এ জন্য দায়ী আমাদের অবিবেচনাপ্রসূত কর্মকাণ্ড ও অদূরদর্শিতা। নদী দখলের ক্ষেত্রে শুধু মডার্ন গ্রুপই নয়, এমন আরও কিছু অসাধুচক্র আছে, যারা প্রতিনিয়ত ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বেড়াচ্ছে এবং নদী-পাহাড়-বন-খেলার মাঠ- কৃষিজমি দখল করছে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, এ কাজে দুর্বৃত্তরা ক্ষমতাসীন দলের নাম-পরিচয় ব্যবহার করছে এবং তারা প্রচলিত আইন ও নিয়ম-কানুনের তোয়াক্কা করছে না।

রাষ্ট্রকে তাদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। তাদের ক্ষমতার উৎস সম্পর্কে জানা দরকার। যে বা যারা তাদের আসকারা দিচ্ছে তারা কখনই সরকারের শুভাকাক্সক্ষী নয়। কাজেই সরকারকে সেটা অনুধাবন করতে হবে এবং তারা যেন কোনভাবেই ছাড় না পায় সে ব্যাপারে সতর্ক হতে হবে। দেশের নদ-নদীগুলোকে দখল, দূষণ ও ভরাট হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে হলে অবশ্যই আইনের যথাযথ প্রয়োগ হওয়া দরকার। যারা দখল-দূষণের মতো অনাচার করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে।