• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

দ্রুত মাউশির নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন

| ঢাকা , রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯

ছয় বছর আগে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগের জন্য প্রক্রিয়া শুরু করে এখনও প্রক্রিয়া শেষ করতে পারেনি মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। ইতোমধ্যে অনেক প্রার্থী চাকরি নিয়ে অন্যত্র চলে গেছেন। অপেক্ষা করতে গিয়ে অনেকের চাকরির বয়সও শেষ হয়ে গেছে। ফলে অন্য কোথাও যাওয়ার সুযোগ না থাকায় তারা মাউশির ও নিয়োগের অপেক্ষায় আছেন। তবে সম্প্রতি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি মাউশির একটি অনুষ্ঠানে এ পদে দ্রুত জনবল নিয়োগের তাগিদ দিয়েছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আইনি জটিলতার কারণ দেখিয়ে এসব পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া থেমে আছে। আদৌ এসব পদে নিয়োগ হবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রার্থীরা। বিষয়টি নিয়ে হতাশায় দিন পার করছেন চাকরি প্রত্যাশীরা। এ নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে তৎকালীন মাউশির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ ওঠে। অভিযোগ, প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে টাকা লেনদেন করা হয়েছে। নিয়োগে অস্বচ্ছতা হয়েছে।

অফিস সহায়ক পদ নিয়ে মাউশি যে অযৌক্তিক বিলম্ব করছে তা অনভিপ্রেত এবং অনাকাক্সিক্ষত। দীর্ঘ ৬ বছর পার হওয়ার পরও মাউশি যে নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে টালবাহানা করছে তা নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেন কোন মাথাব্যথাই ছিল না। শিক্ষামন্ত্রী শুধু দ্রুত জনবল নিয়োগের তাগিদ দিয়েই তার দায়িত্ব শেষ করেছেন। এভাবে মাউশিতে অনিয়ম, দুর্নীতি হচ্ছে কিন্তু এর খেসারত দিচ্ছেন সাধারণ চাকরি প্রার্থীরা।

আমরা অবশ্যই এ অবস্থার পরিবর্তন চাই। সরকার জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়নের মাধ্যমে নানামুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। শিক্ষা খাতে বাজেট বরাদ্দও অনেকাংশে বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু এসব কর্মকান্ডের নিয়ন্ত্রণ কক্ষটিই যদি কাজেকর্মে অনিয়ম এবং অবহেলা নিমজ্জিত থাকে তাহলে সে লক্ষ্য অর্জন আদৌ সম্ভব হবে কি? শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উচিত এ ব্যাপারে যত দ্রুত সম্ভব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া। কালক্ষেপণ না করে যত দ্রুত সম্ভব নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে।