• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২ পৌষ ১৪২৫, ৭ রবিউল সানি ১৪৪০

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় দ্রুত পরিকল্পিত উদ্যোগ নিন

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮

বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকির সম্মুখীন দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশ সপ্তম স্থানে রয়েছে। পোল্যান্ডে চলমান জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন এ চিত্র উঠে এসেছে। গত ২০ বছরের জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে কী পরিবর্তন সাধিত হয়েছে সেটা বিশ্লেষণ করে ‘গ্লোবাল ক্লাইমেট রিস্ক ইনডেক্স’ প্রস্তুত করা হয়েছে। গত বছর এই সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল নবম এবং ২০১৬ সালে ছিল ত্রয়োদশ অবস্থানে।

উল্লিখিত পরিসংখ্যান থেকে বোঝা যাচ্ছে, বাংলাদেশে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি ক্রমেই বাড়ছে। দেশে জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব সুস্পষ্ট হচ্ছে। অগ্রহায়ন শেষ হয়ে আসছে অথচ শীত অনুভূত হচ্ছে না। অকাল বন্যা, অতি বন্যার অন্দ লক্ষণও এ বছর আমরা দেখেছি। আবহাওয়ার এ অস্বাভাবিক পরিবর্তনের সুফল জনজীবনে এবং জীববৈচিত্র্যের ওপর আঘাত হানছে। বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, ভূমি ধসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে গত বছর সারা দেশে মারা গেছেন ৩০৭ জন। আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২৫০ কোটি ডলার।

জলবায়ু-পরিবর্তনের ঝুঁকি যে হারে বাড়ছে তাতে উদ্বিগ্ন না হয়ে পারা যায় না। বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য প্রধানত দায়ী হচ্ছে শিল্পোন্নত দেশগুলো। অথচ এর কুফল ভোগ করছে সমুদ্রঘেঁষা অনুন্নত দেশগুলো। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় উন্নত দেশগুলো দায় এড়াতে পারে না। বিশ্বজনমতের চাপে অনেক উন্নত দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় এগিয়ে আসছে। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক ভূমিকা হতাশাজনক।

বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাব মোকাবিলায় দুটি তহবিল নিয়ে কাজ করছে। সরকারের এ উদ্যোগ বিশ্বজুড়ে প্রশংসিত হয়েছে। তবে গোড়া থেকেই তহবিলের অর্থ ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। প্রথমত, রাজনৈতিক বিবেচনায় প্রকল্প গ্রহণের অভিযোগ রয়েছে। দ্বিতীয়ত, তহবিলের অর্থ লুটপাটের কথাও শোনা যায়। জলবায়ু পরিবর্তন তহবিলের অর্থ এমন অনেক প্রকল্পে নেয়া হয়েছে যার অধীনে কোন কাজই করা হয়নি। বহু এনজিও তহবিলের অর্থ আত্মসাৎ করেছে বলে গণমাধ্যমে বিভিন্ন সময় খবর প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু এ অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকার কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেয়নি। জলবায়ু পরিবর্তজনিত প্রভাব সফলভাবে মোকাবিলা করতে হলে তহবিলের সদ্ব্যবহার কঠোরভাবে নিশ্চিত করা জরুরি।

দেশের পরিবেশ বিপন্ন হওয়ার জন্য অভ্যন্তরীণ অনেক কারণ রয়েছে। দেশজুড়ে দখল-দূষণ চলছে। নদী-নালা, খাল-বিল দখল হয়ে পড়েছে। শব্দদূষণ, বায়ুদূষণ লাগামহীন হয়ে গেছে। পাহাড় কাটা হচ্ছে নির্বিচারে। কৃষিকাজে কীটনাশকের অপব্যবহার হচ্ছে। এসবের বিরুদ্ধেও সরকারকে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে দেখা যায় না। মাঝে মাঝে যেসব পদক্ষেপ নেয়া হয় তা আইওয়াশ ছাড়া কিছু নয়। পরিবেশ বিপর্যয়ের জন্য দায়ী অভ্যন্তরীণ কারণগুলো দূর করাও জরুরি। এ বিষয়ে সরকার টেকসই পদক্ষেপ নেবেÑ সেটা আমাদের দাবি।

  • অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি

    দৃঢ়তার সঙ্গে বাস্তবায়ন করুন

    ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান