• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

এডিশ মশা নিয়ন্ত্রণে এখনই উদ্যোগ নিন

| ঢাকা , বুধবার, ১১ মার্চ ২০২০

বছরের শুরু থেকেই ডেঙ্গুজ্বরের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে। চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২৫০ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম এ তথ্য দিয়েছে। চলতি বছর এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগে কেউ মারা যাননি। গত বছর সারা দেশে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৭৯ জন মারা গেছেন। গত বছর দেশে ডেঙ্গু রোগ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল। ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে দেশের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছিলেন ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন মানুষ।

ডেঙ্গু রোগের যে প্যাটার্ন সাম্প্রতিক বছরগুলোতে লক্ষ্য করা গেছে তাতে চলতি বছর এর প্রকোপ বাড়ার প্রবল আশঙ্কা রয়েছে। ডেঙ্গুকে বলা হতো অঞ্চলভিত্তিক মৌসুমি রোগ। সাধারণত শহরাঞ্চলে বছরের একটি নির্দিষ্ট সময়ে এর প্রকোপ বাড়ে। কিন্তু গতবার দেশে প্রায় সারা বছর ধরে ডেঙ্গুর প্রকোপ লক্ষ্য করা গেছে। এক অর্থে বলা যায়, গত বছর শুরু হওয়া ডেঙ্গু রোগের রেশ এখনও কাটেনি। যে কারণে চলতি বছরের শুরু থেকেই এ রোগে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। বৃষ্টির মৌসুম শুরু হলে পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে।

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলো কতটা প্রস্তুত সেই প্রশ্ন উঠেছে। গত বছর ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ব্যর্থতার কারণে ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল। দুই সিটি করপোরেশনের গাফিলতির বিষয়টি বিচারিক তদন্তেও উঠে এসেছে। গতবারের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার সিটি করপোরেশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে সেটা আমাদের প্রত্যাশা। ঢাকার দুই সিটির নবনির্বাচিত দুই মেয়রদের দিকে রাজধানীবাসী তাকিয়ে আছে। তাদের উদ্যোগী হয়ে এখন থেকেই কার্যক্রম শুরু করতে হবে।

মশা নিয়ন্ত্রণের মূল কাজ সিটি করপোরেশনের হলেও তাদের একার পক্ষে এ কাজ করা কঠিন। তাদের সঙ্গে রাজধানীর অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে সমন্বিত পদক্ষেপ নেয়া হলে মশা নিয়ন্ত্রণ সহজ হবে। মশা নিয়ন্ত্রণের কাজে নাগরিকদেরকেও সম্পৃক্ত করতে হবে। এডিস মশা সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করতে হবে। ঢাকার বাইরেও মশা নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে কাজ করা জরুরি। কাজগুলো অবিলম্বে শুরু করতে হবে। সময়ের কাজ সময়ে করা না হলে যে কী মূল্য দিতে হয় সেটা দেশবাসী অতীতে দেখেছে। কারও অবহেলা-উদাসীনতায় নাগরিকদের যেন এবারও খেসারত দিতে না হয় সেটা কঠোরভাবে নিশ্চিত করতে হবে।