• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ২৪ জিলহজ ১৪৪০

অমানবিক !

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

সন্তানসম্ভবা হওয়ার কারণে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ইউএনও হোসনে আরা বেগমকে ওএসডি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। আকস্মিকভাবে ওএসডি হওয়ার খবর শুনে অ্যাজমার রোগী হোসনে আরা মানসিক চাপে পড়লে তার ফুসফুসে রক্ত সরবরাহ অস্বাভাবিক কমে যায়। এর ফলে তার গর্ভের সন্তানের অক্সিজেন সরবরাহ ব্যাহত হলে চিকিৎসকের পরামর্শে সিজারিয়ান অপারেশন করা হয়। ৩১ সপ্তাহ বয়সী প্রিম্যাচিউরড একটি শিশুর জন্ম দেন তিনি। হাসপাতালের এনআইসিইউতে ভর্তি শিশুটির অবস্থা সংকটাপন্ন। নিজের ও তার সন্তানের এ অবস্থার জন্য হোসনে আরা দায়ী করেছেন আকস্মিক ওএসডি হওয়ার ঘটনাকে। এর পেছনে এক কর্মকর্তার হাত রয়েছে বলে তিনি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে অভিযোগ করেছেন। এ নিয়ে গত সোমবার একটি জাতীয় দৈনিক বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়েজ আহম্মদ গণমাধ্যমকে বলেছেন সামনে উপজেলা নির্বাচন। নির্বাচনে অনেক পরিশ্রম করতে হবে। সন্তানসম্ভবা হওয়ায় সেই দায়িত্ব পালন করা উক্ত ইউএনওর পক্ষে কঠিন হতো। তিনি বলেন, জনপ্রশাসনের সিদ্ধান্তে উক্ত ইউএনও উপকৃত হয়েছেন।

মাথামোটা আমলাদের দিয়ে প্রশাসন চালানো হয় এমন অভিযোগ অনেক পুরনো। নারায়ণগঞ্জের নারী ইউএনওকে ওএসডির ঘটনায় আমাদের মনে হচ্ছে, আমলারা অমানবিকও বটে। নইলে যে সিদ্ধান্তের কারণে একটি শিশুর জীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে সেই সিদ্ধান্তে শিশুটির মা উপকৃত হয়েছে বলে মন্তব্য করতে পারতেন না জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব। আমরা জানতে চাই, ‘পরোপকারী’ এবং ‘হৃদয়বান’ সচিব মহোদয়ের কাছে এমন উপকার কে চেয়েছিলেন। উক্ত ইউএনও মাতৃত্বকালীন ছুটি পেতে পারতেন। সেই ছুটি তিনি এখনও দাবি করেননি। মেঘ না চাইতেই বজ্রাঘাতের মতো ওএসডি করা হলো কার পরামর্শে সেটা জানা দরকার। কোন নারী কর্মকর্তা সন্তানসম্ভবা হলে সরকারি দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না সেটা দেশের কোন আইন লেখা আছে! সন্তানসম্ভবা নারীর জন্য কোন দায়িত্ব পালন করা কঠিন সেটা ঠিক করবেন তার চিকিৎসক, সচিব এ সিদ্ধান্ত নেয়ার এখতিয়ার পেলেন কোথায়। দায়িত্ব পালন করা যদি কঠিন হয়ও তার জন্য ওএসডি করতে হবে কেন সেটাও জানতে হবে। কারণ ওএসডি করার কিছু নিয়ম আছে, এর নির্ধারিত প্রক্রিয়াও আছে। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ইউএনওকে কোন নিয়মে বা কোন প্রক্রিয়ায় ওএসডি করা হলো সেটা আমরা জানতে চাই। এজন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জবাবদিহি আদায় করতে হবে। ওএসডি করার পেছনে কারও কোন অসৎ উদ্দেশ্য আছে কিনা সেটা খতিয়ে দেখে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নিতে হবে। ওএসডি করার ঘটনায় উক্ত শিশু বা তার মায়ের কিছু হলে তার দায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এড়াতে পারবে না। মাথামোটা এবং অমানবিক আমলাদের বিরুদ্ধে সরকার কী ব্যবস্থা নেয় সেটা দেখার অপেক্ষায় রইলাম আমরা।