• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

টিসির জন্য প্রায় ৮ হাজার টাকা

স্কুলের অবৈধ-অনৈতিক কাজ বন্ধ করুন

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৪ জানুয়ারী ২০১৯

রাজধানীর মতিঝিল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট (টিসি) বাবদ শিক্ষার্থী প্রতি ৭ হাজার ৮শ’ টাকা আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে অভিভাবকরা ক্ষুব্ধ হয়ে কয়েক দিন বিক্ষোভ করেছেন। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ তাতে কোনো গুরুত্ব দিচ্ছে না। অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন আচরণে অসহায় অবস্থায় পড়েছেন। এ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সহযোগী দৈনিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

জানা গেছে, জনৈক অভিভাবক টিসির জন্য গেলে বিদ্যালয়ের শাখাপ্রধান বলেছেন, শিক্ষার্থী নবম শ্রেণীতে ভর্তি হলেই টিসি দেয়া হবে; নইলে দেয়া হবে না। নবম শ্রেণীর ভর্তি ও সেশন ফি ৭ হাজার ৮শ’ টাকা। এ ব্যাপারে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা বলেছেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এভাবে টাকা আদায় করা বেআইনি ও অনৈতিক। টিসি বাবদ সর্বোচ্চ ১ থেকে ২শ’ টাকা নেয়া যেতে পারে।

শিক্ষার্থীরা টিসি চাইলে প্রতিষ্ঠান টিসি দিয়ে দেবে এটাই নিয়ম। এজন্য পুনরায় নবম শ্রেণীতে ভর্তি হতে হবে এবং ৭ হাজার ৮শ’ টাকা লাগবে- এমন কোনো নিয়ম নেই। দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ভর্তি বাণিজ্য, এসএসসি, এইচএসসির ফরম পূরণে বাড়তি ফি আদায়সহ নানান ধরনের অভিযোগ রয়েছে। এখন নতুন করে টিসি নিয়ে বাণিজ্য শুরু করেছে। অবৈধভাবে এসব বাণিজ্য করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো একদিকে যেমন শিক্ষার্থীদের জিম্মি করছে, তেমনি অভিভাবকদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা আদায় করে নিজেদের পকেট ভারি করছে। এভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো স্বেচ্ছাচারিতা চালালেও সরকার এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি এবং এখনও নিচ্ছে না।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক বলেছেন, একজন শিক্ষার্থী কেন নবম শ্রেণীতে দুবার ভর্তি হবে। কেন টিসি বাবদ এত টাকা নেয়া হবে। সে প্রশ্ন আমাদেরও। একজন শিক্ষার্থী টিসি নিয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানের যেতে পারে; তার সে অধিকার রয়েছে। কিন্তু তাই বলে এত টাকা আদায় করাটা পুরোপুরি অপরাধ।

আমরা চাই, মতিঝিল মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হোক। জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। এ ব্যাপারে আমরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।