• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১কার্তিক ১৪২৬, ১৬ সফর ১৪৪১

হানিফের মন্তব্যের সমালোচনা ছাত্রলীগ নেত্রীর

বিতর্কিতদের তালিকা প্রকাশের ঘোষণা

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাবি

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০১৯

image

বিতর্কিত কমিটির প্রতিবাদে গতকাল ঢাবিতে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ মিছিল -সংবাদ

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতারা পূণার্ঙ্গ কমিটিতে অছাত্র, ছাত্রদল, বিবাহিত ও বিতর্কিতদের রাখার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে গত সোমবার মধুর ক্যান্টিনে তাদের ওপর পদপ্রাপ্তদের হামলার ঘটনাকে ছোট ও সাধারণ আখ্যা দেয়ায় আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন ছাত্রলীগের এক নেত্রী।

গতকাল দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ সমালোচনা করেন। বিতর্কিত কমিটির প্রতিবাদে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলনে বোনদের ওপর নির্মম হামলা ও শারীরিক লাঞ্ছনার প্রতিবাদে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত দেড় শতাধিক নেতা উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে মাহবুব-উল-আলম হানিফের মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে শামসুন্নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নিপু ইসলাম তন্বী বলেন, আর কতটুকু লাঞ্ছিত হলে তাদের মনে হতো যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নারীদের ওপর নির্যাতন হয়েছে? প্রশ্ন ওঠে- আমরা মারা গেলে কি সত্যতা প্রমাণ হতো যে এখানে একটি বিশাল ঘটনা ঘটেছে? তিনি বলেন, সত্যিকার অর্থে বলতে আজকে দুঃখ লাগছে ছাত্রলীগের নিবেদিত প্রাণ হিসেবে মধুর ক্যান্টিনের মতো জায়গায় ছাত্রলীগের কিছু ছোট ও বড় ভাই দ্বারা নির্যাতিত হই, এরপরে কোন মা-বাবা, ভাই-বোন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ করার জন্য তাদের সন্তানকে পাঠাবে না। তন্বী বলেন, ছাত্রলীগের নারী নেত্রীরা বারবার নির্যাতিত হচ্ছে। আর কত নির্যাতন হলে তাদের টনক নড়বে? আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় লোকদের কাছ থেকে আমরা কবে বিবৃতি পাব বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নারী নেত্রীদের ওপর সত্যিকার অর্থে বড় ধরনের হামলা হয়েছে, সে প্রশ্নটি থেকে যায়।

মানববন্ধনে ঢাবির আইন অনুষদ ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল হাসান শুভ বলেন, অনেক ত্যাগী কর্মীদের বঞ্চিত করে নিজেদের অনুগতদের কমিটিতে পদ দেয়া হয়েছে। যারা শুরু থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করেছে তাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। উল্টো এর প্রতিবাদ করলে আমাদের বোনদের ওপর হামলা চালিয়েছে তারা বিতর্কিত এই কমিটি আমরা মানি না। অবিলম্বে কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি ঘোষণার জোর দাবি জানান তিনি।

ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক ও ছাত্রলীগের পূণার্ঙ্গ কমিটির উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক বি এম লিপি আক্তার বলেন, যাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রাখা হয়েছে তাদের ২২ জনের আগে কোন পদ ছিল না। অথচ তাদের পদ দেয়া হয়েছে। আমাদের ছোট পদ দেয়া হয়েছে এজন্য বা আমরা পদ না পাওয়ার জন্য আন্দোলন করছি না, বরং কমিটিতে মাদক মামলার আসামি, বিবাহিত, অছাত্র, ছাত্রদল, রাজাকারের সন্তানদের পদ দেয়া হয়েছে, তার জন্য আমরা আন্দোলন করছি।

মানববন্ধনে ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক প্রচার সম্পাদক সাইফউদ্দিন বাবু, কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক রাকিব হোসেনসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

বিতর্কিতদের তালিকা প্রকাশের ঘোষণা : ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটিতে যারা বিতর্কিত তাদের তালিকা প্রকাশের ঘোষণা দিয়েছে পদবঞ্চিতরা। তারা বলছেন, ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে যেসব অপরাধী, বিতর্কিত ও বিভিন্ন অপকর্মের দায়ে অভিযুক্ত তাদের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট প্রমাণ সংগ্রহের কাজ চলছে। তাদের বিরুদ্ধে দ্রুতই তালিকা প্রকাশ করা হবে। এ বিষয়ে ছাত্রলীগের গত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফউদ্দিন বাবু বলেন, আমরা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছি। যারা বিভিন্ন অপকর্মের দায়ে অভিযুক্ত এবং বিতর্কিত তাদের বিরুদ্ধে আমরা তালিকা তৈরি করছি। দ্রুতই তা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়ে দেয়া হবে। এদের সংখ্যা শতাধিক বলে জানান সাইফ বাবু।