• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৯ কার্তিক ১৪২৭, ৭ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

সচিবালয়ে কড়া নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য বিধি জোরদার

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস আতঙ্কে প্রশাসনের কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি নিয়ন্ত্রণ জোরদার করা হয়েছে। বেশকিছু দিন ধরেই সচিবালয়ে দর্শনার্থীদের প্রবেশ বন্ধ রাখা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সরকারি কর্মীরাও খুব একটা দফতরে যাচ্ছেন না।

এছাড়াও ফিঙ্গার প্রিন্ট থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের আশঙ্কায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের ডিজিটাল হাজিরা ব্যবস্থা বন্ধ রাখা হয়েছে। কাগজে ফাইল নিষ্পত্তিও অনেকটা এড়িয়ে চলছেন কর্মকর্তারা।

গতকাল দুপুর থেকে এই বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় ‘বাংলাদেশ সচিবালয়ে’। আগামীকাল থেকে টানা ১০ দিনের ছুটির কবলে পরতে যাচ্ছে দেশ। আগামীকাল ২৬ মার্চ সরকারি ছুটি, এরপর ২৭ ও ২৮ মার্চ সাপ্তাহিক ছুটি। আগামী ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এরপর ৩ ও ৪ এপ্রিলও সাপ্তাহিক ছুটি। এ হিসেবে টানা ১০ দিনের ছুটির কবলে পরছে দেশ।

সচিবালয় নিরাপত্তা অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল (২৪ মার্চ) বিকাল থেকে অস্থায়ী পাসধারীদের (ছয় মাস ও এক বছর মেয়াদি) প্রবেশেও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। তবে সংবাদ সংগ্রহের স্বার্থে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ডধারী সাংবাদিকদের প্রবেশ শিথিল রাখা হয়েছে। সচিবালয়ের চারপাশে জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটানো হয়েছে। পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সচিবালয়ের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার রাজিব দাস সাংবাদিকদের বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ইতোমধ্যেই দর্শনার্থী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের দেয়া অস্থায়ী পাস যাদের রয়েছে তাদের প্রবেশেও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। যারা সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী তাদের প্রবেশ করানো হচ্ছে জ্বর পরীক্ষা করে। এ ক্ষেত্রে ডিজিটাল থার্মোমিটার ব্যবহার করা হচ্ছে।’

সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে সচিবালয়ের প্রত্যেকের হাত ধোয়াসহ স্যানিটাইজার ব্যহার নিশ্চিত করা হয়েছে উল্লেখ করে রাজিব দাস জানান, ‘মঙ্গলবার সিটি করপোরেশনের একটি টিম জীবাণুনাশক ছিটিয়ে গেছে। আজ (গতকাল) পিডব্লিডি (পাবলিক ওয়ার্ক ডিপার্টমেন্ট) থেকে জীবানুনাশক ছিটানো হচ্ছে।’

বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তার কক্ষ ছাড়া অন্য যেকোন কক্ষে প্রবেশের ক্ষেত্রে ইতোমধ্যে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত সচিবালয়ে প্রবেশ না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। জনসংযোগ কর্মকর্তারাও (পিআরও) স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

এছাড়াও সচিবালয়ে সব ধরনের সংবাদ সম্মেলন করা বন্ধ করেছে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো। মন্ত্রণালয় থেকে ভিডিও বার্তাসহ প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় বিভিন্ন অঞ্চলের কর্মকর্তা ও পিটিআিই সুপারিনটেনডেন্টদের সঙ্গে নিরাপত্তার স্বার্থে ভিডিও কনফারেন্স করেছে।