• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৬ মে ২০১৮, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৯ রমজান ১৪৩৯

সংসদে প্রশ্নোত্তরসরকারের দুই মেয়াদে ৪২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন

নতুন কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ হচ্ছে না

সংবাদ :
  • সংসদ বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

image

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের বিগত মেয়াদের ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত দেশে ৮টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে এবং বেসরকারি পর্যায়ে ৪২টি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন ও পরিচালনার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। গতকাল দশম জাতীয় সংসদের ১৯তম অধিবেশনের ২৬তম কার্যদিবসে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজীর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে ১৩৫টি সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৭টি সরকারি এবং ৫১টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকায় অবস্থিত। উচ্চ শিক্ষার প্রসারে দেশের প্রতিটি জেলায় সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে একটি করে সাধারণ অথবা বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। এ পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই সরকার এসব বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন এবং অনুমোদন দিয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এছাড়া, ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’ এবং ‘শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়’ নামে আরও দুটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষ্যে সম্প্রতি জাতীয় সংসদে আইন পাস হয়েছে। প্রত্যেক উপজেলায় টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ হবে

জাতীয় পার্টির এ কে এম মাঈদুল ইসলামের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বর্তমান সরকার দেশের সকল উপজেলায় পর্যায়ক্রমে একটি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। মন্ত্রী বলেন, এর অংশ হিসেবে প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত ১শ’টি উপজেলায় ১টি করে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দ্বিতীয় পর্যায়ে বাকি ৩৮৯টি উপজেলায় ১টি কলে টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপনের জন্য উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে।

সরকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন

বাবদ বছরে ব্যয় ১০ কোটি টাকা

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতা বাবদ সরকারের বছরে ১০ কোটি টাকার অধিক ব্যয় হয়। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য রাজস্ব বাজেটে সর্বমোট ১০ কোটি ৮৪ লাখ ৫৯ হাজার ২০৬ টাকা ব্যয় হয়েছে। তিনি বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় বার্ষিক জরিপ ২০১৭ অনুযায়ী দেশে বর্তমানে ২৫ ধরনের প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। যার সংখ্যা মোট ১ লাখ ৩৩ হাজার ৯০১টি। গতকাল সংসদে সরকারি দলের সদস্য শেখ মো. নূরুল হকের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, এসব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোট ৫ লাখ ৫৭ হাজার শিক্ষক কর্মরত রয়েছে। এরমধ্যে মহিলা শিক্ষক ৩ লাখ ৫১ হাজার ৮৬৩ জন। এছাড়া আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন করে দফতরি কাম নৈশ প্রহরীর নিয়োগ কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

নতুন কোন প্রাথমিক বিদ্যালয়

জাতীয়করণের পরিকল্পনা নেই

সরকারি দলের সদস্য অ্যাডভোকেট মো. জিয়াউল হক মৃধার টেবিলে উপস্থাপিত এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, নতুন করে কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করার পরিকল্পনা সরকারের নেই। মন্ত্রী বলেন, ২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দেশের সকল রেজিস্ট্রার্ড, এমপিওভুক্ত এবং আবেদিত ২৬ হাজার ১৯৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পার্বত্য জেলায় ইউএনডিপি পরিচালিত ২ হাজার ৩১০টি বিদ্যালয় জাতীয়করণ করা হয়। বর্তমানে এসব ঘোষিত শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলমান রয়েছে। তাই এসব প্রতিষ্ঠানের বাইরে নতুন করে কোন বিদ্যালয় জাতীয়করণের পরিকল্পনা আপাতত সরকারের নেই।