• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১

শিক্ষকদের কল্যাণ ট্রাস্টে অতিরিক্ত কর্তনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্ট ফান্ড ‘এপ্রিল-২০১৯’ থেকে ৬ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ কর্তনের সিন্ধান্ত নেয়ায় তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে সারাদেশের শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে। বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠন অবিলম্বে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এই সিন্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও থেকে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তনের প্রজ্ঞাপন অবিলম্বে বাতিল না করলে ১ মে থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অবিরাম ধর্মঘট পালনের হুমকি দিয়েছেন ‘বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (নজরুল)-এর নেতারা।

তারা গতকাল রাজধানীর মিরপুর সিদ্ধান্ত হাইস্কুলে শিক্ষক সমিতি (নজরুল) ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াঁজো ফোরামের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সমিতির এক সভায় এ দাবি জানান।

শিক্ষক নেতারা বলেন, প্রায় পাঁচ লাখ এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের চলতি ‘এপ্রিল’ এর এমপিও থেকে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ড এবং শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের নামে ৬ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ কর্তনের প্রজ্ঞাপন অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি নজরুল ইসলাম রনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় শিক্ষক নেতারা বলেন, ‘একটি অশুভ চক্রের কারণে শিক্ষক-কর্মচারীদের অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তন হবে বর্তমান সরকারের জন্য আত্মঘাতীমূলক। সারাদেশের শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে এ কারণে অসন্তোষ ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।’

সমিতির মহাসচিব মেসবাহুল ইসলাম প্রিন্স বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শিক্ষকরা নৌকার পক্ষে কাজ করেছে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের আশায়; কিন্তু তা না করে শিক্ষকদের সঙ্গে কোন আলোচনা ছাড়াই অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তন করা হলে শিক্ষকরা আর ঘরে বসে থাকবে না।’

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি গাজী মামুন আল জাকির, অতিরিক্ত মহাসচিব কামরুল খান, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব আবুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সহকারী মহাসচিব মঈনুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যক্ষ মুস্তফা জামান রানা, সহ-সভাপতি ড. ফারহানা খানম, লিয়াঁজো ফোরামের উপদেষ্টা ফিরোজ মিয়া, কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি মঞ্জুরুল আমিন শেখর, শিক্ষক সমিতির (ঢাকা মহানগর) দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম শিকারী, সহ-সভাপতি আমির হোসেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুব্রত কুমার ভট্টাচার্য্য, দফতর সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ফেডারেশনের সম্পাদক বেলায়েত হোসেন প্রমুখ।

এদিকে অন্য শিক্ষক সমিতির সভাপতি সৈয়দ জুলফিকার আলম এক বিবৃতিতে বলেছেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে ১০ শতাংশ কর্তনের সিদ্ধান্ত শিক্ষকদের স্বার্থের পরিপন্থী। তিনি অবিলম্বে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।