• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জৈষ্ঠ ১৪২৭, ১০ শাওয়াল ১৪৪১

মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল মুখোমুখি

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাবি

| ঢাকা , সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

দীর্ঘ পাঁচ বছর পর নতুন কমিটি পেয়েছে ছাত্রদল। সম্প্রতি কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে ছাত্রদলের সভাপতি নির্বাচিত হন ফজলুর রহমান খোকন এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন ইকবাল হোসেন শ্যামল। গতকাল বেলা ১১টায় নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে প্রায় আড়াইশ’ নেতাকর্মী মধুর ক্যান্টিনে আসেন। এ সময় তারা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দেয়। সেখানে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা আগে থেকে অবস্থান করছিলেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ‘কটুক্তিমূলক’ স্লোগান শুরু করলে পুরো এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পাল্টাপাল্টি স্লোগানে মধুর ক্যান্টিন উত্তপ্ত হলেও কোন ধরনের হামলা বা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেনি।

দুপুরে ১২টার দিকে মধুর ক্যান্টিনে আসেন ছাত্রদল নেতারা। এর আগে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি, বালিশ চুরিসহ বিভিন্ন অনিয়মের প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মধুর ক্যান্টিনে গিয়ে মিছিল শেষ হয়। এর কিছু সময় পর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য মধুর ক্যান্টিনে আসেন।

মধুর ক্যান্টিনে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, আপনারা দেখছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কিভাবে উসকানিমূলক স্লোগান দিচ্ছে। আমরা যখন ক্যাম্পাসে তাদের সঙ্গে সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক করতে গেছি, তখন সেই সহযোগিতা পাইনি।

ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, ছাত্রদল সবসময় সাধারণ ছাত্রদের অধিকার নিয়ে কথা বলে। আপনারা এর বাস্তবায়িত রূপ দেখতে পাবেন। তিনি বলেন, সহাবস্থানের কথা বলা হলেও এখানে কোন গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই। কৌশলগত কারণ হিসেবে আমরা ভিন্ন পথ অবলম্বন করি। যেমন কোটা আন্দোলন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলন এবং ভ্যাট আন্দোলনে আমরা সরাসরি অংশগ্রহণ না করলেও আমাদের সাহায্য-সহযোগিতা ছিল।

এদিকে, ছাত্রদলের ঢাবি ক্যাম্পাসে আসার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, হাইকোর্ট থেকে একটি রায় দিয়েছে যে, বঙ্গবন্ধুর হত্যার সঙ্গে জিয়াউর রহমানের একটি সম্পৃক্ততা ছিল। সে হিসেবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা যদি জিয়াউর রহমানের ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলকে প্রতিহত করে, সেক্ষেত্রে আমাদের কিছু করার নেই। তারা যদি সুশৃঙ্খল থাকে, তবে তারা মধুর ক্যান্টিনে আসলেও কোন সমস্যা হবে না। কিন্তু তারা যদি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে, মধুতে এসে উসকানি দেয়, তাহলে আমরা তা মেনে নিব না।