• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১

বিচারে বিলম্ব ধর্ষক সন্ত্রাসীদের সাহস জোগাচ্ছে : ঐক্যন্যাপ

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০১৯

ঐক্যন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেছেন, অধ্যক্ষের হাতে যৌন হয়রানির শিকার হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েও সময়ের সাহসী সন্তান মেধাবী নুসরাত বাঁচতে পারেনি। তাতে বুঝা যায় দেশ এখন ধর্ষক ও সন্ত্রাসবাদীদের হাতে নিয়ন্ত্রিত করদ রাজ্যে প্রবাহিত হচ্ছে। গতকাল বিকেলে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে ঐক্যন্যাপ ও সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন আয়োজিত ‘ফেনী জেলার সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি যৌন নিপীড়ন ও আগুনে পুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদ’ শীর্ষক এক মানববন্ধন ও সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্যের সাভাপতিত্বে মানববন্ধন ও সমাবেশ বক্তব্য রাখেন- সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি জিয়াউদ্দিন তারেক আলী, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কাজী সালমা সুলতানা, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক জাহাঙ্গির আলম মজনু, ঐক্য ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আসাদুল্লাহ তারেক, প্রেসিডিয়াম সদস্য, রঞ্জিত কুমার সাহা প্রমুখ। এছাড়াও মানববন্ধন ও সমাবেশ ঘোষণাপত্র পাঠ করেন অধ্যাপক ড. আজিজুর রহমান, সঞ্চালনা করেন সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ।

পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, আইয়ুব-ইয়াহিয়ার প্রেতাত্মারা আজ-সমাজের নিয়ন্ত্রকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হচ্ছে। তাদের হাতেই ইতোপূর্বে নুসরাতের মতো অনেকে ঝরে গেছে। তাদের হত্যার বিচারের-বিলম্বে আজ সন্ত্রাসী ও ধর্ষকদের সাহস যোগাচ্ছে। সারাদেশে ধর্ষক, খুনী, সন্ত্রাসীরা এখন বেপরোয়া। তাই আমরা দেশের বিবেকবান মানুষদের ঘুরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি।

মানববন্ধনে জিয়াউদ্দিন তারেক আলী বলেন, ধর্ষণের প্রতিটি ক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্তরা আইনের গ্যাঁড়াকলে পড়ে নাজেহাল হচ্ছে। অনেকে উল্টো পুলিশি হয়রানির শিকার হয়ে নীরবে-নিবৃত্তে চোখের জল ফেলছে। সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়ে অমান বিকতায় বেঁচে আছে। আমরা দাবি করবো যৌন হয় রানী, ধষণন ও যেকোন ধরনের সন্ত্রাসবাদের মোকাবেলায় বিশেষ আইনি সহায়তার ব্যবস্থা নিতে হবে এবং দ্রুততম সময়ে বিচারের ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি আরও বলেন, নুসরাত জাহান যে সাহসী উচ্চারণ করে গেছেন সেই অনুযায়ী ধর্ষক অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা এবং যারা তার সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক সাজা দিতে হবে।