• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮ ৪ রমজান ১৪৪২

বাংলাদেশের জলসীমায় অবৈধ প্রবেশ : ২৪ শ্রীলঙ্কান জেলে আটক

সংবাদ :
  • চট্টগ্রাম ব্যুরো

| ঢাকা , রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০

দেশের জলসীমায় অবৈধ অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের সময় শ্রীলঙ্কার ২৪ জন জেলেকে আটক করেছে নৌবাহিনী। তাদের কাছ থেকে চারটি ফিশিং বোট, ইঞ্জিন ও মালামাল জব্দ করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানানো হয়।

আটককৃতদের পতেঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সামুদ্রিক মৎস্য অধ্যাদেশ, ১৯৮৩ তৎসহ ১৪, ১৯৪৬ সালের বৈদেশিক নাগরিক সম্পর্কিত আইনে পতেঙ্গা মডেল থানায় একটি মামলা (নং- ২৩) দায়ের করা হয়েছে।

আটক জেলেরা হলেন- টি মানজুলা ডি সিলভা (২৯), কে জানাত (৪৭), জিহান (২২), টি পেসান্না (২৪), পি আনতুনি (২৩), নিমেষ (২২), ডিনেশ ডামিরা (৩৬), সামন্তকুমার (৩৬), লর্ড জান্দিমার (২৮), টি নিরোশন (২৬) ডি মানচ (৩০), ডিনেশ লাসাংতে (২৮), প্রদীপ (৩১), লীসান্তাজায়া (৩৩), সামন কুমার (৩১), গায়ান (৩৮), আরপি ডিপপি (৩৬), নিশান (৩১), নিদুশান (৩২), ওয়াচিরে (৩৪), জুসান্ত কুমার (৩৪), উদয় কুমার (৪০), দানুকা প্রভা (৪০) ও দিপাল কুমার (৪১)।

সিএমপির অতিরিক্ত বন্দর থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া বলেন, নৌবাহিনীর সদস্যরা ২৪ জন শ্রীলঙ্কান জেলেকে পতেঙ্গা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে সামুদ্রিক মৎস্য আইন ও বৈদেশিক নাগরিক সম্পর্কিত আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১২টার দিকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ বানৌজা ওমর ফারুক বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ অংশে টহল দিচ্ছিল। এ সময় অচোনা, সানজু পুঠা, সি হর্স ও ডেনান মেরিন আচোনা নামে চারটি মাছ ধরার নৌকাকে আটক করা হয়। এতে ছিলেন শ্রীলঙ্কার ২৮ জন জেলে, বোটচালক ও কর্মী। যারা সে সময় বাংলাদেশ অংশের সাগরে মাছ ধরছিলেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে নৌবাহিনীর আরেকটি যুদ্ধ জাহাজ সুরভী। পরে বানৌজা সুরভীতে করে এদের গ্রেফতার করে পতেঙ্গায় নেয়া হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে পতেঙ্গা থানা উপপরিদর্শক মো. আবু সাঈদ রানাকে।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (বন্দর) আরেফিন জুয়েল বলেন, চারটি বোটে করে তারা বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরছিল। গভীর রাতে অবৈধভাবে চারটি বোট বাংলাদেশের সীমানায় ঢুকে পড়ার পর নৌবাহিনীর টহল টিম তাদের আটক করে। পরে তাদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে শ্রীলঙ্কার এই নাগরিকরা স্রোতের টানে বাংলাদেশের জলসীমায় ঢুকে পড়েছিলেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনের প্রতিনিধি হেট্টিআরাচি কপিলা ঈশান্থা। তিনি বলেন, এদের কোন অপরাধ নেই। তারা আসলে স্রোতের টানে বাংলাদেশের জলসীমায় ঢুকে পড়েছিল। এরপর তাদের নৌকার জ্বালানি শেষ হয়ে যায়। আমরা পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি জানিয়েছি।