• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৫, ২৪ জিলহজ ১৪৪০

বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দিতে হবে

প্রকাশক মাজহারুল ইসলাম

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

image

বাংলা সাহিত্য বর্তমানে খুবই ভালো অবস্থানে রয়েছে। প্রতিবছর এই সাহিত্যের ভান্ডার আরও সমৃদ্ধ হচ্ছে। উঠে আসছে নতুন কবি ও লেখক। সেই সঙ্গে সৃষ্টি হচ্ছে রুচিশীল পাঠক। কিন্তু তারপরও এই সাহিত্য বিশ্বের দরবারে তেমন অবস্থান দখল করতে পারেনি। এর একমাত্র কারণ, বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বের পাঠকদের কাছে পৌঁছানো হচ্ছে না। বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বের দরবারে পৌঁছাতে হলে অনুবাদ সাহিত্য উন্নত করতে হবে বলে মনে করেন অন্যপ্রকাশের কর্ণধার মাজহারুল ইসলাম। এবারের বইমেলা ও তার প্রকাশক জীবন নিয়ে কথা হলো তার সঙ্গে।

সংবাদ : এবার বইমেলা কেমন চলছে?

মাজহারুল ইসলাম : অন্যবারের চেয়ে এবারের বইমেলার শুরুটা খুবই ভালো হয়েছে। প্রথমদিন থেকেই পাঠক সমাগম ভালো হচ্ছে। এবারের পরিবেশও সুন্দর। বেচাকেনাও এ পর্যন্ত গতবারের তুলনায় ভালো। তবে মেলার ২১ তারিখের পর চেহারা পাল্টাবে। তখন এখনকার চেয়ে বেচাকেনা আরও বাড়বে। পাঠক সমাগমও বেশি হবে।

সংবাদ : এবার বইমেলায় অন্যপ্রকাশের কয়টি বই আসছে?

মাজহারুল ইসলাম : এবার আমাদের প্রায় ৭০টিরও বেশি বই আসছে।

সংবাদ : কোন ধরনের বইয়ের প্রতি পাঠকের আগ্রহ বাড়ছে বলে আপনি মনে করেন?

মাজহারুল ইসলাম : কোন বিশেষ ধরনের বইয়ের প্রতি পাঠকের আগ্রহ আছে বলে আমি মনে করি না। পাঠকরা আসলে বিচিত্র রকম বই চাচ্ছে এবং চাহিদা অনুযায়ী বই পেলেই কিনে ফেলছে। যেমন কিছু পাঠক আছে যারা মুক্তিযুদ্ধের বিষয়ে জানতে চায়। তারা মুক্তিযুদ্ধের বই পেলেই লুফে নিচ্ছে। আবার কিছু পাঠকের পছন্দের লেখক আছে। তারা এসেই সেই লেখকের বই এবার এসেছে কিনা তা জিজ্ঞাসা করছে এবং কিনে ফেলছে। যেমন আমরা ইমদাদুল হক মিলনের বই অনেক করেছি। তার বিশেষ কিছু পাঠক রয়েছে। তারা এসেই তার বইয়ের খোঁজ করছেন।

সংবাদ : নতুন লেখকরা কেমন করছে বলে আপনি মনে করেন?

মাজহারুল ইসলাম : আমি করি, নতুনরা খুবই ভালো করছে। তাদের লেখার মানও ভালো। যেমন নতুন কবি হক ফারুক আহমেদের বই ‘নিঃসঙ্গতার পাখিরা’, স্বকৃত নোমানের ‘মায়ামুকুট’ খুবই ভালো করছে।

সংবাদ : আপনার দৃষ্টিতে বাংলা সাহিত্যের অগ্রগতি কেমন?

মাজহারুল ইসলাম : আমার মনে হয়, বাংলা সাহিত্যের অবস্থান খুবই ভালো। প্রতিনিয়ত আমরা এগুচ্ছি। প্রতি বছর নতুন নতুন কবি ও লেখক তৈরি হচ্ছে। প্রতি বছর বই প্রকাশের সংখ্যাও বাড়ছে। একই সঙ্গে আমাদের মধ্যে বই পড়ার অভ্যাসও তৈরি হচ্ছে।

সংবাদ : বাংলা সাহিত্যে কোন ধরনের বইয়ের অভাব রয়েছে?

মাজহারুল ইসলাম : বর্তমানে আমাদের সমস্যাটা হলো, আমরা যে সাহিত্য রচনা করছি তা বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে পারছি না। কারণ বাংলাদেশ ও ভারত ছাড়া সেভাবে বাংলা চলে না। তাদের কাছে আমাদের সাহিত্য পৌঁছে দেয়ার একমাত্র পথ হলো অনুবাদ করা। আমরা যদি আমাদের সাহিত্যগুলোকে ইংরেজিতে অনুবাদ করি, তাহলে বিশ্ব জানতে পারবে আমরাও ভালো সাহিত্য সৃষ্টি করতে পারি।