• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ২৮ আষাঢ় ১৪২৭, ২০ জিলকদ ১৪৪১

বশেমুরবিপ্রবির ঘটনা তদন্তে মন্ত্রণালয়ের চিঠি

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থীদের লাগাতার আন্দোলনে পাঁচ দিনের মাথায় অবশেষে টনক নড়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। ঘটনা দ্রুত তদন্ত করে রিপোর্ট দেয়ার জন্য গতকাল ইউজিসিকে চিঠি দিয়েছে মন্ত্রনালয়। তদন্ত রিপোর্ট আসলেই সে অনুসারে নেয়া হবে ব্যবস্থা। তবে রিপোর্টের আগে উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের অপসারণের সম্ভাবনা কম বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

শিক্ষার্থীদের ওপর উপাচার্যের নির্দেশে হামলা, সহকারী প্রক্টরের পদত্যাগসহ নানা ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ক্যাম্পাস অচল হয়ে পরলেও এতদিন নিরব ছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। প্রচলিত আইন অনুসারে দেশের রাষ্ট্রপতি বিশ্বিবিদ্যালয়র আচার্য। শিক্ষা মন্ত্রণালয় শুধু রাষ্ট্রপতির দফতরকে সাচিবিক কাজগুলো করে দেয়। এজন্য বিশ^বিদ্যালয়গুলোর অস্থিরতা নিরসনের দায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওপর বর্তায়।

জানা গেছে, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি অসুস্থ স্বামীর পাশে থাকতে এ মুহূর্তে ভারতে রয়েছেন। ই-নথিতে সই করার মাধ্যমে তিনি রুটিন কিছু কাজ করছেন। কিন্তু দেশে না থাকায় তিনি নীতিগত কোন কাজ করাতে বা করতে পারছেন না।

বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে আমরা সজাগ আছি। আমরা বসে নেই। তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তবে ইউজিসির পক্ষেতো তেমন কিছু করার সুযোগ নেই। ইউজিসি কেবল তদন্ত করে রিপোর্ট দিতে পারে। কিছুৃ করার ক্ষমতা আছে মন্ত্রণালয়ের।’

এদিকে উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। এখনতো বিশ^বিদ্যালয় বন্ধ। আমরা ইউজিসির কাছে একটি প্রতিবেদন চেয়েছি। আজই (গতকাল) চিঠি গেছে। তারা তদন্ত করে প্রতিবেদন দিলে সে অনুসারে একটা সিদ্ধান্ত হবে এবং আচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে সে ব্যবস্থা নেব।’