• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

সংসদ এলাকা

বন্ধ ফিলিং স্টেশন আবার চালুর পক্ষে কমিটি

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , সোমবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৯

রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা (কেপিআইভুক্ত) জাতীয় সংসদ এলাকার নিরাপত্তা বিবেচনায় নবম জাতীয় সংসদের ‘সংসদ কমিটি’র সুপারিশে আসাদ গেট সংলগ্ন ‘তালুকদার ফিলিং স্টেশনটি বন্ধ হয়ে গেলেও, বর্তমান ‘সংসদ কমিটি’ ওই ফিলিং স্টেশন পুনরায় চালু করার সুপারিশ করেছে। গতকাল জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

কমিটির সভাপতি চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য এবি তাজুল ইসলাম, ফজলে হোসেন বাদশা, কাজী ফিরোজ রশীদ এবং হুইপ মাহবুব আরা বেগম গিনি বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। বৈঠকে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার, সংসদ সচিবালয় ও পিডব্লিউডির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংসদ সদস্যদের আবাসন, নিরাপত্তা, অফিস বরাদ্দসহ বিভিন্ন বিষয় তদারকি করে সংসদ কমিটি। তালুকদার ফিলিং স্টেশনটি বন্ধে নবম সংসদের সংসদ কমিটি যখন সুপারিশ করে সে সময় কমিটির সভাপতি ছিলেন তৎকালীন চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ মো. আবদুস শহীদ। সুপারিশরে পরিপ্রেক্ষিতে সংসদ এলাকার ‘নিরাপত্তার হুমকিস্বরূপ’ এ স্টেশনকে বন্ধ করার ব্যবস্থা নিতে সংসদ সচিবালয় থেকে গণপূর্ত অধিদফতরকে চিঠি দেয়া হয়। ২০০৯ সালের ৪ অগাস্ট তালুকদার ফিলিং স্টেশন এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে নোটিশ দেয় গণপূর্ত অধিদপ্তর। ওই বছরের ১৭ অগাস্ট ফিলিং স্টেশনের মালিক আমেনা বেগম ওই নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে একটি রিট করেন। পরে ২০১০ সালের ২২ জুলাই হাইকোর্ট ডিভিশনের একটি দ্বৈত বেঞ্চ ফিলিং স্টেশন বন্ধে সরকারের নোটিশ বৈধ বলে রায় দেয়। একইসঙ্গে আদালত আমেনা বেগমের রিট খারিজ করে দেয়। এর দু’দিন পর ২৪ জুলাই ফিলিং স্টেশনটি বন্ধ করে দেয় গণপূর্ত অধিদফতর। তখন থেকে এটি বন্ধ অবস্থায় রয়েছে। সংসদ সচিবালয় সূত্র বলছে, এই ফিলিং স্টেশনটি চালু হলে সংসদ সচিবালয়সহ কয়েকশ সংসদ সদস্যের গাড়ির জ্বালানি ক্রয়ের প্রক্রিয়া সহজ হবে বলেই বর্তমান কমিটির পক্ষ থেকে স্টেশনটি চালু করার সুপারিশ এসেছে।

সংসদ এলাকা থেকে কুকুর সরানোর সুপারিশ : বৈঠকে সংসদ ভবন এলাকায় নিয়মিত মশক নিধন অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রাখতে এবং সংসদ ভবন এলাকা থেকে সব ধরনের কুকুর আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে সরিয়ে ফেলতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনকে পরামর্শ দেয়া হয়। প্রয়োজনে ডগ হোম নির্মাণ করে কুকুর স্থানান্তর করতে বলে কমিটি। বৈঠকে সংসদ এলাকা থেকে সকাল ৮টার আগে ময়লা অপসারণ করতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনকে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে সংসদে কর্মরত কর্মচারীদের আবাসন সমস্যা সমাধানে গণপূর্ত বিভাগের মিরপুরে নির্মিত ভবন সংসদের কাছে হস্তান্তর করার জন্য ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়। এছাড়া আগারগাঁও এলাকায় আরও দুটো ভবন নির্মাণ করার সুপারিশ করা হয়। এছাড়াও সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য বাসা বরাদ্দের ক্ষেত্রে সরকারি নিয়মের প্রাপ্যতা ঠিক রেখে বাসা বরাদ্দের সুপারিশ করা হয়।