• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া

ফেরি চলাচল বন্ধ, কখন চলবে কর্মকর্তারা জানেন না

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, শিবচর (মাদারীপুর)

| ঢাকা , শুক্রবার, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে গত ৫ দিন থেকে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ার পর গতকাল সকাল সাড়ে ৭টা থেকে এইরুটে নাব্যসংকটের কারণে বন্ধ হয়ে গেছে ফেরি চলাচল। শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে দুর্ঘটনা এড়াতে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত বন্ধ থাকে ফেরি চলাচল। গতকাল সকালে পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হলে পদ্মা সেতুর ২৫নং পিলারের কাছে ৩টি ফেরি আটকে যায়। এরপরই কর্তৃপক্ষ ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে মাইকিং করে বিকল্প রুট ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। এদিকে ড্রেজিং কার্যক্রম চলছে লৌহজং ও চায়না চ্যানেলে। ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঘাটে দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। কয়েকশ পণ্যবাহী ট্রাক ও পরিবহন আটকে পড়েছে। পরিবহনের যাত্রীরা ঘাটে এসে পড়েছে বিপাকে। আর লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বর্তমানে ৮৭টি লঞ্চ ও দেড় শতাধিক স্পিডবোট পদ্মায় চলাচল করছে। এই রুটে অচলাবস্থার সৃষ্টি হওয়ায় দৌলদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে চাপ বেড়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র কাঁঠালবাড়ী ঘাটের ব্যবস্থাপক আবদুল আলিম বলেন, পদ্মা নদীতে নাব্যতা সংকট, তীব্র স্রোত ও পদ্মাসেতুর নিরাপত্তাজনিত কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। আজ সকাল থেকে ফেরি চলাচল শুরু হলে মাঝ পদ্মায় দুটি ফেরি আটকে যায়। এর থেকে বন্ধ রয়েছে ফেরি চলাচল। তিনি আরও বলেন, পদ্মা নদীতে নাব্যতা সংকট, তীব্র স্রোত ও পদ্মাসেতুর নিরাপত্তাজনিত কারণে রাতে ফেরি সার্ভিস বন্ধ রাখা হয়েছে। মূলত নাব্যতা সংকটের কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি বিকল্প রুট ব্যবহারের পরামর্শ দেন যাত্রী ও চালকদের।

বিআইডব্লিউটিএ ড্রেজিং বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান বলেন, ড্রেজিং এর ব্যাপারে সেতু কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে। ২৫নং পিলারের কাছে তারা ড্রেজিং শুরু করবে। তবে সেখানে প্রচণ্ড স্রোতে থাকায় ফেরি চলাচলে কখন উপযোগী হবে তা বলা যাচ্ছে না। আর লৌহজং টার্নিং চ্যানেলটি আগামী ৪/৫ দিনের মধ্যেই ড্রেজিং সম্পন্ন শেষে খুলে দেয়া হবে।