• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৬ ফল্গুন ১৪২৬, ২৪ জমাদিউল সানি ১৪৪১

নকলে সহযোগিতা না করায় হামলা

প্রধান শিক্ষকসহ আহত ১০, দুই পরীক্ষার্থী আশঙ্কাজনক

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

| ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় এসএসসি পরীক্ষায় নকলে সহযোগিতা না করায় পরীক্ষার্থীদের ওপর হামলা হয়েছে। এতে একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং ৯ পরীক্ষার্থী আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুই পরীক্ষার্থীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে উপজেলার গোপীনাথপুর শহীদ বাবুল উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে সৈয়দাবাদ এএস মনিরুল হক উচ্চবিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীদের ওপর হামলার এ ঘটনা ঘটে।

সৈয়দাবাদ এএস মনিরুল হক উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলী মনসুর জানান, তাদের বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্র গোপীনাথপুর শহীদ বাবুল উচ্চবিদ্যালয়ে। আজ ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র পরীক্ষা চলাকালে গোপীনাথপুর গ্রামের এক যুবক ওই বিদ্যালয়ের এক পরীক্ষার্থীকে নকল সরবরাহের জন্য মনিরুল হক উচ্চবিদ্যালয়ের এক পরীক্ষার্থীকে বলে। সেই পরীক্ষার্থী নকল সরবরাহ অপারগতা প্রকাশ করলে পরীক্ষা শেষে তাকে মারধর করা হয়। এরপর প্রধান শিক্ষক ওই ছাত্রকে নিয়ে কেন্দ্র সচিবের কাছে বিষয়টি অবহিত করেন। এরপর তারা বাড়ি ফিরে যেতে চাইলে ওই বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থী ও বহিরাগতরা মিলে তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় এএস মনিরুল হক উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এবং ৯ পরীক্ষার্থীসহ ১০ জন আহত হন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে আহতদেরকে উদ্ধার করে কসবা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে সোনিয়া আক্তার ও সাবিকুন্নাহার তন্বী নামের দুই পরীক্ষার্থীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে কসবা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মাসুদুল আলম বলেন-দোষীদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।