• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ি জিলহজ ১৪৪১, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

বিডি নিউজ টুয়েন্টি ফোর সম্পাদক

তৌফিক খালিদীর বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন মামলা

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , শুক্রবার, ৩১ জুলাই ২০২০

অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিডি নিউজ টোয়েন্টি ফোর ডট কমের সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদীর বিরুদ্ধে ৪২ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তা ভোগ দখলে রাখার অভিযোগে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে সমন্বিত জেলা কার্যালয় ১ এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি বাদী উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানকেই তদন্ত করার জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এর আগে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে বিডি নিউজের সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালেদীকে প্রথমে তবল পরে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে দুদক। সে সময় তার কাছ থেকে সম্পদের হিসেবও নেয়া হয়। এরপর অবৈধ সম্পদের বিষয়ে অনুসন্ধান চালায় দুদক।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, বিডি নিউজের এমডি ও চিফ এডিটর তৌফিক ইমরোজ খালেদী বেসরকারী এইচএসবিসি, ইস্ট্রার্ন ব্যাংক সাউথ ইস্ট ব্যাংক মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকসহ বিভিন্ন হিসেবে ৪২ কোটি টাকা জমা রেখেছেন। যার বৈধ কোন উৎস নেই। ওই টাকা তিনি প্রতারণার মাধ্যমে ভুয়া কাগজপত্র সৃষ্টি করে অবৈধ পক্রিয়ায় অর্জন করেছেন বলে প্রাথমিক তথ্য প্রমাণিত হয়েছে। তার জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসংগতিপূণ এবং জ্ঞাত আয়ের উৎস বহির্ভূত অস্থাবর সম্পদ তার দখলে রেখে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪ এবং ২৭(১) ধারায় অপরাধ করেছেন।

মামলায় বলা হয়, অনুসন্ধানে দেখা যায় ২০০৬ সালে তৌফিক ইমরোজ খালেদী এবং আসিফ মাহমুদ বিডি নিউজ নামীয় বার্তা সংস্থাকে টেকওভার করে নেন। এ কোম্পানির নাম ছিল তখন বিডি নিউজ টোয়েন্টি ফোর ডটকম। ওই কোম্পানি শুধু লায়েবিটিকে টেকওভার করে নেন। এক পর্যায়ে আসিফ মাহমুদ ৮০ ভাগ শেয়ার বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেন। ২০১৯ সালের মে মাসে শেয়ারের মূল্য নিধারণ করা হয় ৮০ লাখ টাকা য আসিফ মাহমুদকে চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করা হয়। একটি কোম্পানির অডিট প্রতিবেদন অনুযায়ী বিডি নিউজের এসেস্ট মূল্য ৯ কোটি টাকা। তৌফিক ইমরোজ খালেদীর ছেলের শেয়ার থাকলেও সে বিদেশে পড়াশুনা করায় প্রতিষ্ঠান তৌফিক ইমরোজ খালেদী একাই পরিচালনা করেন। ২০১৯ সালের ১০ অক্টোবর এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশ লিমিটেডের সিও রিয়াজ ইসলামকে আসিফ মাহমুদ সঙ্গে নিয়ে তৌফিক ইমরোজ খালেদীর বাসায় যান এবং বিনিয়োগের বিষয়ে কথা বলেন। বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিডি নিউজের ভ্যালুয়েশন করানো হয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিডি নিউজের ভ্যালুয়েশন দেখানো হয়েছে ৩১৭ কোটি টাকা। দুদকের অনুসন্ধানে এসব প্রতিবেদন জমা দেননি তৌফিক ইমরোজ খালেদী। বিডি নিউজের নামে শেয়ার বিক্রি, অবলাভজনক প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্ত্বেও ১শ’ টাকা মূল্যবানের শেয়ার ১২ হাজার ৫শ টাকা বিক্রি দেখানো, বুয়া প্রতিবেদেনের মাধ্যমে বিডি নিউজের ভুয়া ভালুয়েশন তৈরি করাসহ নানাভাবে তিনি বিভিন্ন বাংক হিসেবে ২ কোটি টাকা রেখেছেন।

দুদকের একটি সূত্র জানায়, গত বছরে বিডি নিউজের সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালেদীর বিষয়ে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। এর অংশ হিসেবে প্রথমে তলব করে তৌফিক ইমরোজ খালেদীকে দুদকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় এবং জ্ঞাত আয়ের সব নথিপত্র তবল করা হয়। তিনি নথিপত্র জমা দেওয়ার পর অনুসন্ধান করা হয়। অনুসন্ধানে তার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৪২ কোটি টাকা পাওয়ার পর মামলার সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। গতকাল মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।