• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১০

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , শনিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৯

দেশের সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ১০ জন। এর মধ্যে পঞ্চগড়ে মিনিবাস-অটো সংঘর্ষে ৭, কেরানীগঞ্জে ট্রাক-বাইক সংঘর্ষে বাবা-ছেলেসহ ২ এবং গাইবান্ধায় বাসের ধাক্কায় লেগুনা খাদে পড়ে ১ জন প্রাণ হারায়। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় একটি মিনিবাসের সঙ্গে সংঘর্ষে এক অটোরিকশার চালকসহ সাতজনের প্রাণ গেছে। পুলিশ সুপার মো. ইউসুফ আলী জানান, উপজেলার পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া মহাসড়কের মাগুরমাড়ি চৌরাস্তায় গতকাল দুপুর দেড়টার দিকে এ দুর্ঘটনায় নিহতরা সবাই অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন। নিহতরা হলেন পঞ্চগড় সদর উপজেলার চেকরমারি গ্রামের ইজিবাইক চালক রফিক (২৮), সদর উপজেলার বদিনাজোত গ্রামের আকবর আলী (৭২), তার স্ত্রী নুরিমা (৬৫), তেঁতুলিয়া উপজেলার মাঝিপাড়া গ্রামের লাবু ইসলাম (২৫), তার স্ত্রী নববধূ মুক্তি (১৯), সদর উপজেলার রায়পাড়া গ্রামের মাকুদ হোসেন (৪৩) ও সাহেবজোত গ্রামের নারগিস বানু (৪২)। এদের মধ্যে লাবু ইসলাম ও মুক্তির মাত্র ৪৫ দিন আগে বিয়ে হয়েছে।

পুলিশ সুপার বলেন, ‘তেঁতুলিয়ার ভজনপুর থেকে সদরের জগদলমুখী একটি অটোরিকশার সঙ্গে বিপরীতমুখী একটি যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে আটোরিকশার পাঁচজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। বাকিদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারাও মারা যান।’ নিহতদের মধ্যে তিনজন নারী ও চারজন পুরুষ রয়েছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ঢাকার কেরানীগঞ্জ উপজেলায় ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী বাবা-ছেলে নিহত হয়েছেন। এছাড়া এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন তাদের এক আত্মীয়। কেরানীগঞ্জ থানার ওসি সাকের মোহাম্মদ যুবায়ের জানান, উপজেলার রুহিতপুর এলাকায় শুক্রবার বেলা ২টার দিকে ছেলে সোহানসহ (৭) আসহাদুল হক ইপু (৪০) নামে এই ব্যক্তি নিহত হন।

ওসি যুবায়ের প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে বলেন, ইপু তার স্ত্রী-সন্তান নিয়ে মোটরসাইকেলে করে ঢাকার দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তারা তিনজনই গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক বাবা-ছেলেকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান ওসি যুবায়ের।

তিনি বলেন, নিহতদের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। আহত রেশমা আক্তারকে (৩০) ওই হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রেশমা আশঙ্কামুক্ত। পুলিশ ট্রাক ও মোটরসাইকেল জব্দ করলেও ট্রাকের চালক-সহকারীকে ধরতে পারেনি।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে একটি যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় লেগুনা খাদে পড়ে চালকের প্রাণ গেছে; আহত হয়েছে আরও অন্তত ১৫ জন।

উপজেলার ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে গোবিন্দগঞ্জের হাইওয়ে থানার এসআই মো. শাহ আলম জানান। নিহত আরিফ মিয়া (১৯) গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাট ইউনিয়নের তিলকপাড়া গ্রামের মো. সঞ্জু মিয়ার ছেলে। তিনি লেগুনার চালক ছিলেন। আহতদের পলাশবাড়ী ও পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এসআই বলেন, লেগুনাটি ধাপেরহাট থেকে পলাশবাড়ীর দিকে যাচ্ছিলেন। পথে ঢাকা থেকে রংপুরগামী হানিফ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস লেগুনাটিকে ধাক্কা দেয়। এতে লেগুনাটি ছিটকে রাস্তার পাশে একটি খাদে পড়ে যায় এবং বাসটি উল্টে যায়। এতে লেগুনার চালক ঘটনাস্থলেই মারা যান। গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী জানান, লাশ উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বাসটি আটক করা গেলেও এর চালক ও সহযোগী পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে বলে ওসি জানান।