• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০, ০১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ জিলকদ ১৪৪১

ঢাবি থেকে জালিয়াতদের আজীবন বহিষ্কার দাবি

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাবি

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) প্রশ্নফাঁস ও জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থী এবং তাদের সহযোগীদের আজীবন বহিষ্কারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ’র ব্যানারে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নূর, সমাজসেবা সম্পাদক ও প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করা আখতার হোসেন, স্বতন্ত্র জোট থেকে ডাকসুতে ভিপি পদে নির্বাচন করা অরণি সেমন্তি খান, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হোসেন, রাশেদ খান প্রমুখ।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, যারা জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ্ণ করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। তারা বলেন, যখন প্রশ্নফাঁস হয় তখন প্রশাসন বলে প্রশ্নফাঁস হয়নি, ডিজিটাল জালিয়াতি হয়েছিল। তাহলে প্রশ্ন হলো ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে কি এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া যায়? ছাত্রলীগসহ সব ছাত্র সংগঠন থেকে জালিয়াতদের বহিষ্কারের দাবি এসেছে। তাহলে এখনও কেন তাদের বহিষ্কার করা হচ্ছে না? তাহলে কি আমরা ভেবে নিব, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনও জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত রয়েছে।

ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নূর বলেন, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে অসৎ উপায়ে কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ক্ষুণ্ন করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে এটি চলে আসলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সবসময় দায়সারা বক্তব্য দিয়ে এসেছেন। তিনি বলেন, অতিদ্রুত জালিয়াতি করে যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছে এবং জালিয়াতি চক্রের সঙ্গে ঢাবির যারা জড়িত তাদের সিন্ডিকেটের মিটিং ডেকে আজীবন বহিষ্কার করতে হবে। যারা ইতোমধ্যেই পাস করে গেছেন তাদের সার্টিফিকেট বাতিল করতে হবে।

এক ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা প্রশ্নফাঁস ও জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থী এবং তাদের সহযোগীদের আজীবন বহিষ্কারের দাবিতে উপাচার্যের কার্যালয়ে স্মারকলিপি দেন।