• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ৭ শাবান ১৪৪১

ঢাকা-মাওয়া

ছয় লেন এক্সপ্রেসওয়ে উদ্বোধন মার্চে

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০

সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, মার্চে উদ্বোধন হতে যাচ্ছে দেশের প্রথম ছয় লেন বিশিষ্ট এক্সপ্রেসওয়ে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক। এক্সপ্রেসওয়ে একেবারে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পর্যন্ত। প্রধানমন্ত্রীকে সশরীরে এটি উদ্বোধনের অনুরোধ জানিয়ে সার-সংক্ষেপ পাঠানো হয়েছে। তিনি যেদিন সময় দেবেন, সেদিনই উদ্বোধন করা হবে। এছাড়া ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক চার লেন উন্নয়নের কাজ জুনের মধ্যে শেষ হবে। যেসব ঠিকাদার সময়মতো সড়ক নির্মাণ ও মেরামত কাজ শেষ করবে না কিংবা কাজ ধীরে করবেন তাদের কার্যাদেশ বাতিল করা হবে। প্রয়োজনে তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। গতকাল সচিবালয় সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে দফতর প্রধান ও প্রকল্প পরিচালকদের সঙ্গে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পসমূহের পর্যালোচনা ও নাগারিক সেবা প্রদান বিষয়ক সভাশেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি। সভায় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. আশরাফুল আলম, বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান ড. মো. কামরুল আহসান, বিআরটিসি’র চেয়ারম্যান মো. এহছানে এলাহী, ডিটিসিএ’র নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমানসহ প্রকল্প পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় সরকার প্রায় তিন লাখ দক্ষ গাড়িচালক তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে জানিয়ে সড়কমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনকে (বিআরটিসি) এ বিষয়ে প্রকল্প গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। প্রতিমাসে বিআরটিসির এক কোটি টাকা বকেয়া পরিশোধ করা হচ্ছে। লিজ দেয়ার ক্ষেত্রে তাদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। দেশের যে কোন জেলা থেকে যানবাহনের ফিটনেস সনদ প্রদানের উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এছাড়া ব্যক্তি মালিকানাধীন গাড়ির ফিটনেস সনদের মেয়াদ এক বছর থেকে বাড়িয়ে দুই বছর করা হচ্ছে। অর্থাৎ এখন থেকে দুই বছর পরপর যানবাহনের ফিটনেস সনদ গ্রহণ করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, যে সব ঠিকাদার সময়মতো সড়ক নির্মাণ ও মেরামত কাজ শুরু করেন না কিংবা সময়ক্ষেপণ করেন, তাদের কার্যাদেশ বাতিলসহ প্রয়োজনীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৭৭ ভাগ। এ পর্যন্ত ২৩টি স্প্যান স্থাপন করা হয়েছে। ঢাকা মহানগরীর যানজট নিয়ন্ত্রণে মেট্রোরেল রুট-৬ এর নির্মাণকাজ ইতোমধ্যে ৪২ ভাগ শেষ হয়েছে বলেও তিনি জানান।