• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮ ৪ রমজান ১৪৪২

সাংবাদিকের ওপর হামলায়

গ্রেফতার ইসমাইল রিমান্ডে

    সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
  • | ঢাকা , শুক্রবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিনে দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিক মোস্তাফিজুর রহমান সুমনের ওপর হামলার মামলায় গ্রেফতার ইসমাইল হোসেনের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরীর আদালত শুনানি শেষে রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার এসআই আলতাফ হোসেন আসামিকে আদালতে হাজির করে পঁাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

আবেদনে বলা হয়, গত ১ ফেরুয়ারি ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ঢাকা উত্তরের কয়েকটি নির্বাচনী কেন্দ্রের সংবাদ সংগ্রহ করেন আগামী নিউজপোর্টালের সাংবাদিক সুমন। সকাল ১১টার দিকে তিনি খবর পান-৩৪নং ওয়ার্ড রায়ের বাজারস্থ জাফরাবাদ সাদেকখান রোড এলাকায় সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকনের (টিফিন ক্যারিয়ার মার্কা) অনুসারীরা সহিংসতা চালাচ্ছে। পরে তিনি সেখানে যান। দুপুর ১২টার দিকে সুমন জাফরাবাদে পৌঁছান। শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকনের অনুসারীরা সশস্ত্র অবস্থায় একটি বড় মিছিল নিয়ে জাফরাবাদের দিকে যাচ্ছিল। সে সময় ভিকটিম মিছিলের দৃশে?্যর ভিডিও মোবাইলে ধারণ করেন। মিছিলের বেশ কয়েকটি ভিডিও ভিকটিমের কাছে সংরক্ষিত আছে।

ভিডিও ধারণের সময় মিছিল থেকে ১২/১৫ জন সন্ত্রাসী ক্যাডার ভিকটিমের ওপর চড়াও হন এবং তাকে গালি গালাজ করেন। তার হাতে থাকা মোবাইল ফোন ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার জন্য উদ্যত হন। আসামিরা সুমনকে হত্যার উদ্দেশে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি ও হকিস্টিক দিয়ে মারধর করতে থাকে। সে সময় কয়েকজন মিলে ধারাল অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। সুমনের কাছে থাকা মোবাইল ফোন, ক্যামেরা, লেন্স, ভোটার আইডি কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, অফিসিয়াল আইডিকার্ড, মানিব্যাগসহ নগদ ৪৮০০ টাকা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে নেয় এবং তাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি প্রদান করে।

এদিকে ইসমাইলকে মামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার করার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং তার সঙ্গে আর কারা ছিল জানতে চাইলে সে সঠিক জবাব না দিয়ে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটন, মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে সহযোগী পলাতক অজ্ঞাতনামা আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ ও গ্রেফতার করাসহ ভিকটিমের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়া মোবাইল ফোন, ক্যামেরা, লেন্স, ভোটার ও অফিসিয়াল আইডি কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, মানিব্যাগসহ টাকা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র উদ্ধারের লক্ষ্যে রিমান্ড মঞ্জুরের প্রার্থনা করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

আসামির পক্ষে ফোরকান মিয়া রিমান্ড বাতিলপূর্বক জামিনের প্রার্থনা করেন। তিনি বলেন, এজাহারে কারও নাম উল্লেখ নেই। আর নির্বাচনের দিন ইসমাইল কোথাও যায়নি বাসায় ছিল। তাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পুলিশ এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ড চেয়েছে। আসামির রিমান্ড বাতিল পূর্বক জামিনের প্রার্থনা করছি। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে এক দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন। গত বুধবার রাতে রায়েরবাজার বুদ্ধিজীবী কবরস্থান এলাকা থেকে ইসমাইলকে গ্রেফতার করা হয়। উল্লেখ্য, ১ ফেরুয়ারি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের দিন পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় দুর্বৃত্তরা হামলা চালায় সাংবাদিক সুমনের ওপর। সুমনকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে সন্ত্রাসীরা। ৩ ফেরুয়ারি সুমন বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।