• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭, ১৫ জিলকদ ১৪৪১

খাদ্য ব্যবস্থাপনা আরও বাস্তবমুখী করা হয়েছে

কৃষিমন্ত্রী

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

| ঢাকা , রোববার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯

কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুুর রাজ্জাক বলেছেন, আত্মনির্ভরশীল ও উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্য অর্জনে খাদ্য ব্যবস্থাপনাকে আরও বাস্তবমুখী ও শক্তিশালী করা হয়েছে। ‘উন্নত জাতি গঠনের অন্যতম প্রধান শর্ত হচ্ছে পুষ্টি।

কৃষিমন্ত্রী গতকাল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে খাদ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘নিউট্রিশন অলিম্পিয়াড-২০১৯’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। খাদ্য সচিব শাহাবুদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এবং ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের ডেলিগেশনের প্রধান ও অ্যাম্বাসেডর মিজ রেঞ্জজতেরিংক এবং জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার প্রতিনিধি রবার্ট ডি সিম্পসন। কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুদূরপ্রসারি চিন্তার ফলশ্রুতিতে জনস্বাস্থ্য ও পুষ্টি উন্নয়নকে রাষ্ট্রের অন্যতম প্রাধিকার হিসেবে সংবিধানে উল্লেখ করা হয়েছে। কৃষি গবেষণার প্রায় সব বড় প্রতিষ্ঠান তার সৃষ্টি। তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। ইতোমধ্যেই খাদ্য উৎপাদনে বিশেষত : দানাদার জাতীয় খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে দেশ।’

তিনি বলেন, ‘উন্নত জাতি গঠনের অন্যতম প্রধান শর্ত হচ্ছে পুষ্টি। আত্মনির্ভরশীল ও উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্য অর্জনে খাদ্য ব্যবস্থাপনাকে আরও বাস্তবমুখী ও শক্তিশালী করা হয়েছে। খাদ্যের পাশাপাশি কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুৎ, তথ্য-প্রযুক্তিসহ প্রতিটি খাতে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছি। খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আমি কৃষি, স্বাস্থ্য, সমাজ কল্যাণ, পরিবেশ, পানি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, মহিলা ও শিশু শিল্প, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর সমন্বিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানাই।’

অনুষ্ঠানে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে পুষ্টি উন্নয়নে সাম্প্রতিক কালে তরুণ ও কিশোরদের সম্পৃক্ততা একটা উল্লেখযোগ্য ঘটনা। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে দেশব্যাপী উল্লেখ্যযোগ্য সংখ্যক নিউট্রিশন ক্লাবের প্রতিষ্ঠা তাদের যথেষ্ট উৎসাহ যোগাচ্ছে। এসডিজি’র খাদ্য ও পুষ্টি সংশ্লিষ্ট লক্ষ্যসমূহ অর্জনে জাতিসংঘের খাদ্য ও পুষ্টি সংস্থার কারিগরি সহয়তায় খাদ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে একটি ‘জাতীয় খাদ্য ও পুষ্টি নীতি’ প্রণয়নের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নে বতমানে তরুণ ও কৃষকদের স¤পৃক্ততা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটা আরও বৃদ্ধি করতে হবে। পুষ্টি উন্নয়নে সবার সহযোগিতা একান্ত প্রয়োজন।’