• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ২৩ ফাল্গুন ১৪২৭ ২৩ রজব ১৪৪২

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৮

কিশোর-তরুণদের আগ্রহ বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী সায়েন্সফিকশনে

সংবাদ :
  • হাসনাত শাহীন

| ঢাকা , মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮

image

একটা সময় ছিল স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা তথা তরুণরা বিজ্ঞান বা বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট বিষয় সামনে এলেই চুপসে যেত। অধিকাংশ শিক্ষার্থীরাই বিজ্ঞান বিষয় নিয়ে পড়তে আগ্রহী হতেন না। সেই ভীতি এখনও অনেক শিক্ষার্থীর মধ্যে থাকলেও সময় পাল্টেছে। সময়ের পথপরিক্রমায় এখন বিজ্ঞান নিয়ে পড়তে আগ্রহ বেড়েছে, তেমনই বিজ্ঞানের নানান বিষয়ে জানার আগ্রহও তৈরি হয়েছে সাধারণ স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের তথা তরুণদের মাঝে। তারুণ্যের সেই বাড়ন্ত আগ্রহের কেন্দ্র বিন্দুতে আছে প্রতিবছর অমর একুশে গ্রন্থমেলাকে কেন্দ্র প্রকাশিত বিভিন্ন লেখকের বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী বা সায়েন্সফিকশন ভিত্তিক বিভিন্ন বই। বিগত বেশকয়েকটি গ্রন্থমেলার অভিজ্ঞতা সঙ্গে এবারের গ্রন্থমেলার বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন বয়সের পাঠকরা যেভাবে সায়েন্সফিকশন খুঁজে বেড়াচ্ছেন তাতে এটা নিঃসন্দেহে বলা যায় যে সময়টা এখন সায়েন্সফিকশনের।

বইপ্রেমীরা একসময় শুধু গল্প, উপন্যাস আর কবিতায় নিমগ্ন থাকলেও বর্তমানে বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী তথা সায়েন্সফিকশনে মজেছে তরুণ-তরুণীরা। বিশেষ করে তারুণ্যের আগ্রহেই বিগত কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবারের গ্রন্থমেলায় এগিয়ে রয়েছে সায়েন্সফিকশন ধর্মী বইয়ের বিক্রি। বরাবরের মতো এবারেরর মেলায়ও এগিয়ে আছে মুহম্মদ জাফর ইকবাল। দেশের প্রধান এই বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর লেখকের ‘ত্রাতিনা’ বইটি এবারের মেলায় ইতোমধ্যে শীর্ষস্থান অর্জন করেছে বলে জানিয়েছে বইটির প্রকাশক ‘সময়’ প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী ফরিদ আহমেদ। তিনি বলেন, এই বইটির বিক্রির সংখ্যা ত্রিশ হাজার ছাড়িয়ে যাবে। একই প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত তাসরুজ্জামামান বাবুর ‘বিয়ন্ড দ্য ম্যানমেইড ইউনিভার্স’ ও বিশ^জিৎ দাশের ‘রাশ’ বইটির কাটতিও বেশ ভালো বলে জানালেন ফরিদ আহমেদ। তিনি আরও বলেন, তরুণ পাঠকদের আশিভাগ সায়েন্সফিকশনের দ্বারা প্রভাবিত। অন্যদিকে ‘মুক্তচিন্তা’ থেকে প্রকাশিত ডা. আনিসের সায়েন্সফিকশন বই ‘কিসিকিসি’ খুব ভালো বিক্রি হচ্ছে বলে জানালেন বইটির প্রকাশনা সংস্থা। বইটির লেখক ডা. আনিস বলেন, এর আগেও তার বই প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু এবারই প্রথম সায়েন্সফিকশন বই লিখলাম। সায়েন্সফিকশন বইয়ের পাঠক আছে। আমারও প্রত্যাশা ছিল বইটির ভালো বিক্রি হবে কিন্তু প্রত্যাশার চেয়ে বেশি পেয়েছি। ‘অনিন্দ্য’ থেকে প্রকাশিত হয়েছে দেশের বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনির অন্যতম একজন লেখক মোশতাক আহমেদের ‘অমর মানব’, ‘নির্বাচিত সায়েন্সফিকশন’, ‘প্রজেক্ট ইক্টোপাস’, ও দীপু মাহমুদের ‘ভবঘুরে মহাকাশচারী’, অরুণ কুমার বিশ্বাসের ‘কফিমেকার’, রকিবুল ইসলাম মুকুলের ‘মাইক্রোপিপ’। সবগুলো বই-ই ভালো যাচ্ছে বলে জানালেন ‘অনিন্দ্য’ প্রকাশের স্বত্বাধিকারী আফজাল হোসেন। ‘কথাপ্রকাশ’ থেকে এবারের মেলায় এসেছে মুহম্মদ মনিরুল হুদার ‘জলকন্যা’ ও ‘ম্যাগাস’। প্রকাশনাটির বিক্রয় ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ ইউনুস আলী জানান তাদের প্রকাশিত সায়েন্সফিকশনগুলোর বিক্রিও বেশ ভালো। অন্যদিকে আরও কাটতি রয়েছে ‘পাঞ্জেরি’ থেকে প্রকাশিত ধ্রুব এষের ‘সারি’ ও মোস্তফা কামালের ‘বিজ্ঞানী লীরা ও এলিয়েন’, প্রকাশনা সংস্থা ‘জয়তী’ থেকে প্রকাশিত দীপু মাহমুদের ‘নীলার রোবট বন্ধু’, ‘শিখা প্রকাশনী’র সহস্র সুমনের ‘টংকার’, পার্ল প্রকাশ করেছে যাযাবর জিয়ার ‘ম্যাগনেটম্যান দ্য পাওয়ার’ এবং ‘অনুপম প্রকাশনী’ থেকে প্রকাশিত হয়েছে তপন চক্রবর্তীর ‘ফুটবলার বিজ্ঞানী’। এছাড়াও গ্রন্থমেলায় বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থা থেকে প্রকাশিত হয়েছে অসংখ্য বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী বা সায়েন্সফিকশনের বই। গতকাল ১৯তম মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বেশিরভাগ তরুণ বইপ্রেমীদের হাতে হাতে সায়েন্সফিকশন বই দেখা গেছে।

গতকালের মেলার নতুন বই ও বইয়ের মোড়ক উন্মোচন : গতকাল গ্রন্থমেলার ১৯তম দিনে বাংলা একাডেমির জনসংযোগ বিভাগের তথ্য মতে মেলায় নতুন বই এসেছে ১৪১টি। এর মধ্যে গল্পগ্রন্থ এসেছে ২২টি, উপন্যাস ২৪টি, প্রবন্ধ ১১টি, কবিতা ৫৩টি, ছড়ার বই ৩টি, শিশুতোষ গ্রন্থ ৩টি, জীবনী গ্রন্থ ২টি, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বই ৩টি, বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থ ১টি, ভ্রমণ বিষয়ক বই ২টি, রম্য/ধাঁধা’র বই ১টি, অনুবাদ গ্রন্থ ৩টি, সায়েন্সফিকশন ১টি এবং অন্য বিষয়ে বই এসেছে ১২টি।

এদিকে, গতকাল গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণে এবং গ্রন্থমেলার মোড়ক উন্মোচন মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয়েছে বেশ কয়েকটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান। এর মধ্যে প্রকাশনা সংস্থা ‘যুক্ত’র সামনে প্রকাশনীটি থেকে প্রকাশিত সাংবাদিক সাহিত্যিক গবেষক ড. জ্যোৎস্নালিপি-এর শিশুতোষগ্রন্থ ‘চরকা কাটা বুড়ি’। বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন দেশের প্রথম নারী আলোকচিত্রী সাইদা খানম।

গতকালের মূলমঞ্চের আয়োজন : গতকাল বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ, হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, সেলিম জাহান এবং ফাহমিদা খাতুন। সভাপতিত্ব করেন হাসনাত আবদুল হাই।

প্রাবন্ধিক বলেন, বাংলাদেশ আজ আর্থসামাজিক উন্নয়নের দোরগোড়ায়। পদ্মাসেতু দৃশ্যমান, রেলের ব্রডগেজিকরণ ও ডাবল লাইনিং অচিরেই হবে, ২০১৮ সালেই ২০০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের হাতছানি। বাংলাদেশ পাঁচ উন্নয়ন সহযোগী চীন, জাপান, ভারত, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক ও বিশ্বব্যাংক চার হাজার কোটি মার্কিন ডলারের সমতুল্য আর্থিক ঋণ সুবিধার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাংলাদেশের নেতৃত্ব ও আর্থিক ব্যবস্থাপনায় তাদের আস্থা প্রকাশ করেছে। দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে কল্যাণ রাষ্ট্র সোনার বাংলা গড়ার সম্ভাবনা বাংলার দিগন্তে উঁকি দিচ্ছে।

সভাপতির বক্তব্যে হাসনাত আবদুল হাই বলেন, অপ্রতিহত গতিতে বাংলাদেশ উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতি আজ আর কোন স্বপ্ন নয়, এখন এটি এক বাস্তবতা। প্রান্তিক মানুষের জীবনমান উন্নতকরণকে বাংলাদেশ তার অর্থনীতির অন্যতম প্রধান অভিমুখ নির্ধারণ করায় অর্থনৈতিক অগ্রগতির সুফল সর্বস্তরে পৌঁছে যাচ্ছে।

আলোচনা শেষে সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে পরিবেশিত হয় সামিউন জাহান দোলার একক অভিনয়ে ধ্রুপদী অ্যাক্টিং স্পেস-এর নাটক ‘নভেরা’।

আজকের গ্রন্থমেলা : আজ অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২০তম দিন। এদিনের মেলা চলবে বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। এর মধ্যে বিকেল ৪টা গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘বাংলাদেশের হাজার বছরের ইতিহাস : বহুত্ববাদ এবং স্বাধীন বাংলাদেশের চার রাষ্ট্রনীতি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আকসাদুল আলম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন সৈয়দ আনোয়ার হোসেন ও মাহবুবুল হক। সভাপতিত্ব করবেন শামসুজ্জামান খান। সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।