• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, ২১ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক উৎসব

ঐতিহ্যের টানে বরেন্দ্র অঞ্চলে তীর-ধনুক আর ঝুমুরের বোল

সংবাদ :
  • সুব্রতদাস, রাজশাহী

| ঢাকা , শনিবার, ০৯ নভেম্বর ২০১৯

image

যে কোন লোক সংগীতেই লুকিয়ে থাকে স্থানীয় মানুষের সুখ-দুঃখের কাহিনী। সেই সব কাহিনী যুগ যুগ ধরে চলে আসছে আবহমান কাল ধরে। সেই সব ঐতিহ্যগুলো এখনো ধরে রেখে সংগীত আর ঐতিহ্যেঘেরা অদিবসীদের সাংস্কৃতিক উৎসব রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় ক্ষুদ্র নৃ- গোষ্ঠীদের অংশ গ্রহণে বার্ষিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বেলা ১১টায় উপজেলার দেওপাড়া, গোগ্রাম ও মোহনপুর ইউনিয়নের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৩০টি রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠনসমূহের আয়োজনে ও অংশগ্রহণে ৮ ও ৯ নভেম্বর-১৯ দুই দিনব্যাপী বার্ষিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান-২০১৯ এর উদ্বোধন করেন সিসিবিভিওর সভাপতি মো. মোজাম্মেল হক।

উদ্বোধনী পর্বে উপস্থিত ছিলেন সিসিবিভিওর নির্বাহী প্রধান সারওয়ার-ই-কামাল, গোদাগাড়ী উপজেলার হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি কৃষ্ণ কুমার সরকার, দা দৌড় রক্ষাগোলা সংগঠনের মোড়ল সাহেব মুর্মু, সিসিবিভিওর হিসাবরক্ষক এএইচএম তারিক।

অনুষ্ঠানটি ব্রেড ফর দি ওয়ার্ল্ড- জার্মানির সহযোগিতায়, সিসিবিভিও-রাজশাহীর আয়োজনে গোদাগাড়ি উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়নের গোল শহর মাঠ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানের প্রথম দিনের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল বিয়ের গীত, নৃত্য ও তীর-ধনুক নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা হয়। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন ৩০টি রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠনের সাংস্কৃতিক দলের ৫৬০ জন নারী, পুরুষ ও শিশু। সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিন জনজাতিভিত্তিক কারাম গীত ও নৃত্য, দাশাই, আম লবান ও ঝুমুর প্রতিযোগিতায় ৩০টি রক্ষাগোলা সাংস্কৃতিক দলের ৫৬০ জন নারী, পুরুষ ও শিশু অংশগ্রহণ করবেন।

আজ থেকে শুরু হওয়া দু’দিনব্যাপী রক্ষাগোলা গ্রাম সমাজ সংগঠনসমূহের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী পর্বে সংগঠনসমূহের পক্ষে সিসিবিভিও’র নির্বাহী প্রধান বলেন ‘রক্ষাগোলা খাদ্য নিরাপত্তার পাশাপাশি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী জনগণের অধিকারসমূহ অর্জন এবং নিজস্ব সংস্কৃতি সংরক্ষণ ও সম্প্রসারণের কাজ করে যাচ্ছে। তাদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন ও সমাজে সম্প্রতি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমরা আশাবাদী সংগঠনগুলো আগামীতে স্বনির্ভরতার দিকে এগিয়ে যাবে। তিনি তাদের সংগঠিত হয়ে আরও শক্তিশালী হওয়ার আহ্বান জানান।’

অনুষ্ঠানটি সফলভাবে সম্পন্ন করতে সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সহযোগিতা করেন সিসিবিভিও-এর আরিফ, নিরাবুল ইসলাম, শাহাবুদ্দিন সিহাব, ইমরুল সাদাত ও রক্ষাগোলা গ্রামভিত্তিক স্থিতিশীল খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচির তত্ত্বাবধায়করা ও ৩০টি রক্ষাগোলার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠকসহ রক্ষাগোলা সংগঠনের নেতারা।