• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

শাহজাদপুরে

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষ : নিহত ১

আহত ২০, বাড়িঘর ভাঙচুর-লুটপাট

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ)

| ঢাকা , সোমবার, ০৪ মে ২০২০

গ্রামের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পূর্ব বিরোধের জের ধরে সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর পৌর এলাকার পাড়কোলা গ্রামে মাইকে ঘোষণা দিয়ে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর বেল্লাল হোসেন ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর মোস্তাফিজুর রহমান পীযূষ সমর্থিত গোষ্ঠীর মধ্যে গতকাল ফের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে বেল্লাল গোষ্ঠীর সমর্থক আলী আজগর (৫৫) প্রতিপক্ষের উপর্যুপরি ফলার আঘাতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে পুলিশসহ ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ইয়াছিন (১১), বেল্লাল (৩৫), পলান (৩২), বাবলা (২২), রাকিবুল (২৩), রতন (২৫), হাসানূর (২০), আশিক (২০), ছোরমান (২৫), জয়নাল (৩০) ও আফান আলীকে (৫০) সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া সংঘর্ষ চলাকালে মিরাজুল ইসলাম নামের এক পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে ছোরমান আলী, আফান আলী, ডা. সাখাওয়াত চৌধুরীর বাড়িঘর ও চেম্বার ভাঙচুর এবং গরু-বাছুর লুটপাট করা হয়।

গতকাল সরেজমিন পাড়কোলা গ্রাম ঘুরে জানা গেছে, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বেল্লাল গোষ্ঠী ও পীযূষ গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। ইতোপূর্বে উভয়পক্ষের মধ্যে কয়েক দফা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এর জের ধরে গত শুক্রবার সকালে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, বাড়িঘর ভাঙচুর ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের ৩০ জন আহত হয়। এ ঘটনায় উভয়পক্ষই থানায় পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করে। এদিকে মামলা দায়েরের পর থেকে উভয়পক্ষের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এর জের ধরে গতকাল ভোরে ৩টি মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে পীযূষ গোষ্ঠীর লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বেল্লাল গোষ্ঠীর লোকজনের ওপর হামলা চালালে উভয়পক্ষের মধ্যে ফের সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষ চলাকালে পীযূষ গোষ্ঠীর লোকজনের ফলার আঘাতে বেল্লাল গোষ্ঠীর সমর্থক গ্রামের মৃত আবদুল গফুরের ছেলে আলী আজগর (৫৫) নিহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৪ রাউন্ড ফঁাঁকা গুলি ছোঁড়ে। শাহজাদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফাহমিদা হক শেলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা ও থানার ওসি আতাউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে থানার ওসি আতাউর রহমান বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’ এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে ।