• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৫ সফর ১৪৪১

সাঁওতাল হত্যা

আসামিদের গ্রেফতার ও তদন্ত প্রতিবেদন দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, গাইবান্ধা

| ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ০৪ এপ্রিল ২০১৯

সাঁওতাল হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও ভাঙচুর মামলার সব আসামি গ্রেফতার ও দ্রুত তদন্ত প্রতিবেদন দাবিতে গতকাল গাইবান্ধা জেলা পিবিআই অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটি, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন, জনউদ্যোগ ও আদিবাসী বাঙালি সংহতি সমাবেশ এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

গোবিন্দগঞ্জ সাঁওতাল পল্লী থেকে সহস্রাধিক আদিবাসী সাঁওতাল ও বাঙালি নানা রকম দাবিসম্বলিত ফেস্টুন, ব্যানারসহ গাইবান্ধা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পিবিআই অফিসের দিকে যেতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। পলাশপাড়া মোড়ে ডিবি রোডে সাঁওতালরা বসে পড়ে তাদের দাবি জানায়। এ সময় ডিবি রোডের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তারা বলেন, ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর আদিবাসী সাঁওতাল পল্লীতে সন্ত্রাসীদের হামলা ও পুলিশের গুলিতে নিহত তিন সাঁওতাল শ্যামল হেমরম, মঙ্গল মার্ডি ও রমেশ টুডু, আহত হন অসংখ্য সাঁওতাল, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও নির্যাতন করা হয়। এমনকি আদিবাসী সাঁওতাল শিশুদের স্কুলটি সন্ত্রাসীরা পুড়িয়ে দেয়। ঘটনার পর আদিবাসী সাঁওতালরা হত্যা মামলা দায়ের করলেও ঘটনার আড়াই বছর পেরিয়ে গেলেও এজাহারভুক্ত আসামি সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, সাপমার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাকিল আকন্দ বুলবুলসহ উল্লেখযোগ্য কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। বক্তারা অবিলন্বে সাঁওতাল হত্যাকান্ড মামলার আসামিদের গ্রেফতার ও দ্রুত সুষ্ঠু তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার জোর দাবি জানান। বক্তারা আরও বলেন, সাঁওতাল ও বাঙালিদের বাপদাদার সম্পত্তি ফেরতের ব্যাপারে সরকার নির্বিকার। সরকার দ্রুত এ ব্যাপরে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

সাঁওতাল নেতা ফিলিমন বাসকে বলেন, অবিলন্বে সাঁওতাল হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেফতার ও সুষ্ঠু তদন্ত প্রতিবেদন দেয়া না হলে সাঁওতালরা ঢাকা কেন্দ্রীয় পিবিআই অফিসে অবস্থান গ্রহণসহ দেশব্যাপী বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করে দাবি আদায়ে বাধ্য করা হবে। পরে আদিবাসী-বাঙালিদের প্রতিনিধি দল জেলা পিবিআই এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল হাই সরকারের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে।

পিবিআই-এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, চাঞ্চল্যকর মামলা হিসেবে তদন্ত করা হচ্ছে। সরকার সাঁওতালদের ঘটনার ব্যাপারে সংবেদনশীল। অচিরে এই তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে।

সাহেবগঞ্জ-বাগদা ফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ফিলিমন বাস্কের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মিহির ঘোষ, আদিবাসী-বাঙালি সংহতি পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন, জেলা বাসদ সমন্বয়ক গোলাম রব্বানী, ওয়ার্কার্স পাটির নেতা অশোক সরকার, অ্যাডভোকেট মুরাদ জামান রব্বানী, আদিবাসী নেতা বার্নাবাশ, প্রিসিলা মুরমু, স্বপন শেখ, সুফল হেমব্রম, হবিবুর রহমান, সিপিবি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সভাপতি তাজুল ইসলাম, আদিবাসী নেতা রাফায়েল হাসদা, মানবাধিকার কর্মী আবদুল খালেক প্রমুখ।