• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ৬ রবিউল ‍আউয়াল ১৪৪২

ইন্টারন্যাশনাল উইভারস ফেস্টিভ্যাল

আধুনিক ফ্যাশনেবল পোশাকে ঐতিহ্যের ছোঁয়া

    সংবাদ :
  • সংবাদ ডেস্ক
  • | ঢাকা , রোববার, ১৫ মার্চ ২০২০

image

রাজধানীতে আন্তর্জাতিক বুনন উৎসবে উঠতি মডেলদের পোশাক প্রদর্শন -সংবাদ

ঐতিহ্যবাহী তাঁত ও কারুশিল্পকে চাঙ্গা করতে দেশি ডিজাইনারদের সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে বাংলাদেশের পোশাক সম্পর্কে বিশ্ব দরবারে ইতিবাচক ধারণা তুলে ধরতে সম্প্রতি রাজধানীতে অনুষ্ঠিত হলো আন্তর্জাতিক বুনন উৎসব। ফ্যাশন ডিজাইনার টুটলি রহমানের (নেহরিন রহমান টুটলি) পাশপাশি এবার উঠতি ফ্যাশন ডিজাইনার সীমা হামিদের নান্দনিক প্রদর্শনী সবার দৃষ্টি কেড়েছে। উঠতি ফ্যাশন ডিজাইনার সীমা দেখিয়েছেন ঐতিহ্যবাহী বেনারসির ব্যবহারে কীভাবে সমসাময়িক ফ্যাশনেবল পোশাক তৈরি করা যায়। গত ২২ জানুয়ারি ভাটারাতে ৪র্থ ‘ইন্টারন্যাশনাল উইভার্স ফেস্টিভ্যাল (আইডব্লিউএফ)-২০২০’ এ বাংলাদেশি খাদি, সিল্ক, কটন, মসলিন, মিরপুর বেনারসি এবং জামদানির ব্যবহার প্রাধান্য পেয়েছে। এক ঝাঁক মডেলের অংশগ্রহণে এবারের ফেস্টিভ্যালটি ছিল অত্যন্ত প্রাণবন্ত।

ফেস্টিভ্যাল আয়োজন কমিটির চেয়ারম্যান ফ্যাশন ডিজাইনার টুটলি রহমানের (নেহরিন রহমান টুটলি) সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, স্পেনের ডেপুটি হেড অব মিশন ইমিলিয়া সেলেমিন রিদোন্দো প্রমুখ। বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু অনুষ্ঠানে বলেন, বাংলাদেশের ঐতিহ্যময় শিল্প সংরক্ষণে সম্মিলিত প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। বাংলাদেশ বয়ন শিল্পের সম্মানজনক ইতিহাস রয়েছে। মসলিনের হাত ধরে জামদানি এখন সারাবিশ্বে সমাদৃত। বাংলাদেশের খাদি, সিল্ক, জামদানি, মিরপুরী বেনারসি, তাঁতের কাপড় ইত্যাদিতে যে শিল্প রয়েছে তার প্রসার ও সংরক্ষণে সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন।

টুটলি রহমান এবং সীমা হামিদ উভয়ই জানান, আগামী বছরও ফেস্টিভ্যালের মাধ্যমে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী বুনন শিল্পের প্রচারে তাদের প্রয়াস অব্যাহত থাকবে।