• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১

বিস্ময় বালক কায়রান কাজী

নাসরিন শওকত

| ঢাকা , শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

image

বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ১০ বছরের বিস্ময় বালক কায়রান কাজী। মাত্র ৯ বছর বয়সে স্কুলের ফোর্থ গ্রেড থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ক্লাস শুরু করে বিস্ময়ের জন্ম দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত এই অসাধারণ মেধাবী। ইতোমধ্যেই ডেভিডসন ইনস্টিটিউট ইয়ং স্কলারের তালিকায়ও নাম উঠেছে কায়রানের।

তার বয়সী অন্য শিশুরা যখন ক্লাস ফোরের লেখাপড়া শেষ করছে, তখন গত এক বছর ধরে অসামান্য প্রতিভার অধিকারী কায়রান ক্যালিফোর্নিয়ার সান ফ্রান্সেকো শহরের কাছের লিভারমোরের লাস পসিতাস কলেজে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ক্লাস করছে। এখানে সে গণিত ও রসায়ন বিষয়ে ডাবল মেজর করার পাশাপাশি কম্পিউটার সায়েন্স, পরিসংখ্যান এবং মনোবিজ্ঞানের মতো কঠিন বিষয়ে পড়ছে। পড়াশুনা নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে কায়রান জানায়, ২০২১ সালের আগেই জুনিয়র কলেজ পর্যায়ের পড়াশোনা শেষ করে বিশ্ববিখ্যাত এমআইটিতে (ম্যাসাচুসেস্টস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি) মাস্টার্স এবং যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করার প্রত্যাশা করছি।

বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের এক একটি কোর্স শেষ করতে ১৮-২০ বছর বয়সী নিয়মিত শিক্ষার্থীদের যেখানে কমপক্ষে চার মাস সময় লাগে, সেখানে কায়রান তা দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যেই শেষ করে। কায়রানের সঙ্গে একই কলেজে পড়াশোনা করছেন তার এক নিকট আত্মীয় লুপা চৌধুরী। তিনি কায়রনের মেধা সম্পর্কে বলতে গিয়ে জানান, ‘অবশ্যই কায়রান একজন জিনিয়াস। ওর আমাদের মতো এত বেশি পড়তে হয় না। আমরা দুজনেই এক সঙ্গে হোমওয়ার্ক (বাড়ির কাজ ) করি। দেখা যায়, কিছু সময়ের মধ্যেই আই আম ডান (আমার শেষ হয়েছে) বলে উঠে কায়রান মার্শাল আর্ট নয়তো অন্য কিছু করা শুরু করে। মাঝে মাঝে ওকে আমি গাড়িতে করে কলেজে নামিয়ে দেই। সে সময় বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ওকে আমার সঙ্গে দেখে। তাই বলবো, ওর কারণেই আমারও নিজেকে সেলিব্রিটি মনে হয়।’

কায়রান যে অন্য শিশুদের থেকে আলাদা তা অনেক ছোটবেলাতেই তার বাবা-মা বুঝতে পারেন। তার কথাবার্তা ও আচরণ দেখে দু’বছর বয়সেই ডাক্তাররা বলে দিয়েছিলেন যে, অসাধারণ বুদ্ধিমত্তার অধিকারী কায়রান। এ ধরনের শিশুদের বলা হয়ে থাকে ‘প্রফাউন্ডলি গিফটেড চাইল্ড’ (অসাধারণ প্রতিভাশালী শিশু)। তিন বছর বয়সেই বিশ্ব রাজনীতি থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন প্রসঙ্গে কায়রানের বিভিন্ন মন্তব্য সবাইকে অবাক করত। পরীক্ষা করে দেখা যায়, তার আইকিউ (ইন্টেলিজেন্স কুশেন্ট) বা বুদ্ধ্যাঙ্কের স্কোর ৯৯.৯৯ শতাংশেরও বেশি। ‘কেবল আইকিউ’ই নয় কায়রানের ইকিউও (ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স) বা মানসিক (আবেগজনিত) বুদ্ধিমত্তাও অন্যদের থেকে অনেক বেশি-’ কায়রানের বুদ্ধিমত্তা প্রসঙ্গে এমন মন্তব্য করে বাবা মুস্তাহিদ কাজী বলেন, ‘কায়রানের যখন দুই বছর বয়স, তখন ডাক্তাররা আমাদের বললেন যে, ওর আইকিউ খুব খুব বেশি। এর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো ওর মানসিক বুদ্ধিও অনেক বেশি। কায়রানের মানসিক বুদ্ধির বিষয়টি সাধারণত প্রকাশ পায় যে কোন পরিস্থিতি বা চারপাশের মানুষের মানসিক অবস্থা বুঝে কিভাবে আচরণ করতে হয় বা কথা বলতে হয়, সে সম্পর্কে ওর সচেতনতা অনেক বেশি । যা সাধারণত অন্যদের মধ্যে দেখা যায় না।’

বিশ্বিবিদ্যালয় পর্যায়ের ক্লাস করলেও বিস্ময় বালক কায়রান তার সমবয়সী শিশুদের সঙ্গে মিশতেই বেশি পছন্দ করে। অন্য আর দশটা শিশুর মতো দুরন্তপনাতেও কায়রানের কমতি নেই জানিয়ে মা জুলিয়া চৌধুরী বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে কায়রানের ওর সমবয়সী বাচ্চাদের সঙ্গে মিশতে কোন অসুবিধা হয় না। কায়রানের অনেক ছোটবেলা থেকেই এবিষয়ে আমরা অনেক বেশি মনোযোগ দিয়েছি, যাতে ওর সামাজিক দক্ষতাা ভালো হয়। আজকে ও শুধু কলেজেই যায় না, ও দিনে ক্লাস ফোরে যায়। ও ৯-১০ বছরের বাচ্চাদের সঙ্গেই সারা দিন কাটায়। নিজের ভালো লাগা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ভিডিও গেমস আর বন্ধুদের সঙ্গে বাস্কেট বল খেলাতেই তার বেশি আনন্দ বলে জানায় কায়রান। কারাতে শেখা আর পিয়ানো বাজানোও সে খুব পছন্দ করে। সে আরও বলে, ‘স্কুলে আমি আমার ফ্যানদেও সঙ্গে খেলা করি। পড়া যখন থাকে না তখন আমি ভিডিও গেম খেলি। এছাড়াও আমি বাস্কেট বলও খেলি। ’

অন্য যে কোন বিষয় থেকে কায়রানের সবচেয়ে বেশি আগ্রহ কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ে। সাত বছর বয়স থেকে সে কম্পিউটার কোডিং স্কুলে যায়। এই বয়সেই এক ডজনেরও বেশি কম্পিউটার কোডিং ল্যাঙ্গুয়েজ রপ্ত করেছে সে। নিজের কম্পিউটার দক্ষতা সম্পর্কে কায়রান জানায়, ‘যখন আমার সাত বছর বয়স, তখন আমি ইয়ংওঙ্কস কোডিং একাডেমিতে প্যাইথন প্রোগ্রামে ভর্তি হই। বর্তমানে এ একাডেমির সবচেয়ে এ্যাডভান্সড প্যাইথন স্টুডেন্ট আমি। এর পাশাপাশি মেশিন বিষয়ে উন্মুক্ত উপায়ের মাস্টার্স ক্লাসেও পড়ছি।’

ছোটবেলা থেকেই ব্যতিক্রমী কায়রানের বেড়ে ওঠার ক্ষেত্রে তার বাবা-মায়ের ছিল বিশেষ নজর। এ প্রসঙ্গে তার বাবা মুস্তাহিদ বলেন, কায়রানের জন্মের পরে আমরা আশা করি যে, পড়াশোনার প্রতি ওর খুব আগ্রহ থাকবে। আমরা গবেষণা করে দেখলাম যে, ছেলে বাচ্চাদেরকে পড়াশোনায় আগ্রহী করে তুলতে ঘুমানোর আগে বাবা যখন পড়ায়-এতে বাচ্চা পড়ার জন্য অনেক বেশি আগ্রহী হয়ে ওঠে। এ সময় থেকেই নিয়মিত আমি ঘুমের আগে কায়রানকে পড়ানোর অভ্যাস গড়ে তুলি। কায়রানের মা ভবিষ্যতে ছেলেকে কোন পেশায় দেখতে চান-এমন প্রশ্নের জবাবে কাজী জুলিয়া বলেন, কায়রানের ডাক্তার আমাদেরকে আগেই সতর্ক করেছেন যেন আমরা ওর বিষয়ে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা লইয়ার- হওয়ার মতো বিশেষ কোন আশা না রাখি। খুব সম্ভবত কায়রান ১৪-১৫-১৬ বছরে চাকরি শুরু করবে। তাই আমরা শুধু এটুকুই চাই যে, কায়রান খুবই প্রোডাক্টিভ একজন মানুষ হোক আর খুব ইউনিক একটা পেশা বেছে নিক। কায়রান নিজেও গতানুগতিক পেশার বাইরে নতুন কিছু করতে চায়। সে উদ্ভাবক হতে চায়। গত জুন মাসেই সে সিলিকন ভ্যালির অন্যতম প্রধান প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইন্টেলে রিসার্চ কোলাবোরেটর হিসেবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের উপরে কাজ শুরু করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রে জন্ম ও বেড়ে ওঠা কায়রানের বাবা-মায়ের জন্ম বাংলাদেশের সিলেট জেলায়।

কায়রান কাজী মৌলভী বাজারের বিশিষ্ট রাজনীতিক, গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি মন্ডলীর সদস্য, আইনজীবি ও সাংবাদিক প্রয়াত গজনফর আলী চৌধুরী ও সাবেক এমপি সাঈদা চৌধুরীর নাতি।

বাংলাদেশ সম্পর্কে কায়রান বলেন, ‘আমার বাবা-মা সব সময়ই এটা নিশ্চিত করতে চান, আমি যেন আমার বাঙালি ঐতিহ্যকে জানি ও তার প্রতি দায়বদ্ধ থাকি। আমার নানা একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন। এবং আমার দাদা ভূপদার্থবিদ ছিলেন। আমার ভালো মানুষ হয়ে ওঠার ক্ষেত্রে তারা বড় অনুপ্রেরণা। সম্প্রতি আমি রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়টি পর্যালোচনা করেছি। তাদের দুঃখ-দুর্দশা আমাকে কষ্ট দিয়েছে। একইসঙ্গে বাংলাদেশ তাদের জন্য সীমান্ত খুলে দেয়ায় আমি খুশি হয়েছি। কারণ এটি খুব মানবিক একটি বিষয়।’

কায়রানের অনন্য প্রতিভাকে প্রথম সবার সামনে তুলে ধরে মার্কিন সংবাদ মাধ্যম হাফিংটন পোস্ট। এর পরই তাকে ঘিরে আলোচনার শুরু হয় যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে। জনপ্রিয় মার্কিন টেলিভিশন শো ‘গুড মর্নিং আমেরিকা’তে তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। পরে ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইল, আইরিশ টাইমস ও অন্য সব পশ্চিমা গণমাধ্যমও কায়রানকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে আগ্রহের কেন্দ্রে রয়েছে বাংলাদেশের গর্বের বালক কায়রান।

(ভয়েস অব আমেরিকা ও ব্রেইনগেইনম্যাগ ডট কম অবলম্বনে)

  • প্রাচীন নগর সোনারগাঁও

    মাহবুবা আলম সাথী

    newsimage

    প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বেষ্টিত সোনারগাঁও বাংলার প্রাচীন একটি রাজধানী। ঢাকার খুব কাছেই অবস্থিত

  • পৃথিবীর দীর্ঘতম নদী অ্যামাজন

    newsimage

    আয়তনে বড় নদীকে বৃহত্তম নদী বলা হয়। নীল নদীকে দীর্ঘতম নদী বললেও

  • বন্ধুদের আঁকা ছবি

    newsimage

    নাম : তুবা আক্তার ফিহা শ্রেণী : পঞ্চম স্কুল : হলি উইলস স্কুল, নারায়ণগঞ্জ

  • জোড়া বাবুই ও তালগাছের বন্ধুত্ব

    কৌশিক সূত্রধর

    মিনুদের ঘরটা বেশ পুরোনো। এদিকে বৈশাখ মাস কোনদিন যে ঝড়ে ঘরটা উড়িয়ে

  • ছড়া

    newsimage

    শরতের হাসি কবির কাঞ্চন শাপলা শালুক পদ্ম ফোটে ভাদ্র-আশ্বিন এলে সূয্যিমামা মেঘের সঙ্গে লুকোচুরি খেলে। স্বপ্ন নিয়ে

  • একটু হাসো...

    সারি বেঁধে হাটতে হাটতে একটি পিঁপড়া আরেকটি পিঁপড়াকে জিজ্ঞাসা করছে- বল তো,