• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১

প্রাচীন নগর সোনারগাঁও

মাহবুবা আলম সাথী

| ঢাকা , শনিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

image

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বেষ্টিত সোনারগাঁও বাংলার প্রাচীন একটি রাজধানী। ঢাকার খুব কাছেই অবস্থিত এ এলাকার জৌলুস আগের মতো না থাকলেও দেখার মতো রয়েছে অনেক কিছু। ইতিহাস আর ঐতিহ্যের স্বাক্ষী হয়ে আছে এখানকার অনেক স্থাপনা। সোনারগাঁও গেলে দেখতে পাবে- লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন জাদুঘর, ঐতিহাসিক পানাম নগর, গোয়ালদী মসজিদ, গিয়াস উদ্দিন আযম শাহের মাজার ছাড়াও আরও অনেক ঐতিহাসিক স্থান। বাড়তি হিসেবে পাবে মনমুগ্ধকর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, লিচু বাগান ও মেঘনা নদীসহ আরও অনেক কিছু।

পানাম নগর : পানাম নগর বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন শহর। পানাম নগরে কয়েক শতাব্দী পুরোনো অনেক ভবন রয়েছে যা বাংলার বার ভূঁইয়াদের ইতিহাসের সঙ্গে জড়ানো রয়েছে। সোনারগাঁয়ের ২০ বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে এই পানাম নগরী গড়ে ওঠেছে। সোনারগাঁ লোক ও কারুশিল্প জাদুঘর থেকে উত্তর দিকে হাঁটলেই সহজে পৌঁছানো যাবে অর্ধ্বচন্দ্রাকৃতি পানাম পুলে। (যদিও পুলটি ধ্বংস হয়ে গেছে)। এই পুল পেরিয়েই পানাম নগর এবং নগরী চিরে চলে যাওয়া পানাম সড়ক। আর সড়কের দুপাশে সারি সারি আবাসিক একতলা ও দ্বিতল বাড়িতে ভরপুর পানাম নগর। প্রতিদিনই খোলা থাকে এ নগরের সদর দরজা। ঢুকতে টিকিট লাগে ১৫ টাকা।

কারুশিল্প গ্রাম : কারুশিল্প গ্রামে বৈচিত্র্যময় লোকজ স্থাপত্য গঠনে বিভিন্ন ঘরে কারুশিল্প উৎপাদন, প্রদর্শন ও বিক্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। দোচালা, চৌচালা ও উপজাতীয় মোটিফে তৈরি এ ঘরগুলোয় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের অজানা, অচেনা, আর্থিকভাবে অবহেলিত অথচ দক্ষ কারুশিল্পীরা বাঁশ-বেত, কাঠ খোদাই, মাটি, জামদানি, নকশিকাঁথা, একতারা, পাট, শঙ্খ, মৃৎশিল্প ও ঝিনুকের সামগ্রী ইত্যাদি কারুশিল্প উৎপাদন, প্রদর্শনী ও বিক্রি হচ্ছে।

জাদু ঘর : আবহমান গ্রামবাংলার লোকসাংস্কৃতিক ধারাকে বিকশিত করার উদ্যোগে ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দে ১২ মার্চ শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন সোনারগাঁর ঐতিহাসিক পানাম নগরীর একটি পুরোনো বাড়িতে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন। পরে ১৯৮১ খ্রিস্টাব্দে ১৫০ বিঘা আয়তনের কমপ্লেক্সে খোলা আকাশের নিচে বাংলার প্রকৃতি ও পরিবেশে গ্রামীণ রূপকেন্দ্রিক বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের শৈল্পিক কর্মকান্ডের পরিচয় তুলে ধরতে শিল্পী জয়নুল আবেদিন এই জাদুঘর উন্মুক্ত পরিবেশে গড়ে তোলার প্রয়াস নেন এবং বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন কমপ্লেক্সটি প্রায় ১০০ বছর পুরাতন সর্দারবাড়িতে স্থানান্তরিত হয়। এছাড়া জাদুঘরের অভ্যন্তরে আরো রয়েছে বিনোদন ব্যবস্থার জন্য স্থায়ী পিকনিক স্পট, স্থাপত্য নকশা অনুযায়ী নির্মিত আঁকাবাঁকা মনোরম লেক। বুধবার ও বৃহস্পতিবার ছাড়া জাদুঘর প্রতিদিন উন্মুক্ত। টিকিট মূল্য ২০ টাকা। জাদু ঘরের প্যাডেল বোঁ রয়েছে আধঘণ্টার জন্য ভাড়া ১৫০ টাকা, ৪ জন বসা যায়।

আন্ধার কুঠরি : মোগড়া পারা বাস স্ট্যান্ট থেকে দক্ষি দিকে ১০ থেকে ১৫ গেলেই একটি অন্ধকার কুঠুরি রয়েছে। হাতে সময় থাকলে এটিও দেখতে পারো। কোন প্রবেশ মূল্য নেই।

গিয়াস উদ্দিনের মাঝার : অন্ধকার কুঠুরি পেরিয়ে আরো ১০ মনিট গেলে গিয়াস উদ্দিন আজম শাহের মাজার দেখা যাবে। এক বার ঘুরে আসতে পারো সেখান থেকেও। রিকশা বা অটোতে গেলে ভাড়া নিবে ৩০-৪০ টাকা।

মেঘনার পাড় : মোগড়া পারা থেকে সোজা সামনে এগিয়ে গেলে মেঘনার পার। মোগড়া পারা বাস স্ট্যান্ড থেকে চট্টগ্রামের দিকে ১৫-২০ মিনিট গেলেই নদীর কাছে পৌঁছানো যাবে।

ঢাকা থেকে গেলে : যে কেউ প্রাইভেটকার অথবা মাইক্রোবাস নিয়ে সরাসরি লোক ও কারুশিল্প জাদুঘরে যেতে পারবে। আর যদি বাসে যেতে চান তাহলে গুলিস্তান থেকে বাসে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁ মোগড়াপাড়া চৌরাস্তায় এসে নামতে হবে। ভাড়া নিবে ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা। সেখান থেকে রিকশা/অটোরিকশাযোগে সোনারগাঁ জাদুঘরে যেতে হবে। মোগড়াপারা বাসস্ট্যান্ড থেকে প্রায় ২ কিমি. অভ্যন্তরে সোনারগাঁ জাদুঘরের অবস্থান এবং এর সঙ্গেই রয়েছে পানাম নগরী। সুতরাং যে কেউ বাস, মিনিবাস বেবিট্যক্সি, মোটরসাইকেলসহ যে কোন ধরনের বাহনেই সেখানে যেতে পারেন।

  • পৃথিবীর দীর্ঘতম নদী অ্যামাজন

    newsimage

    আয়তনে বড় নদীকে বৃহত্তম নদী বলা হয়। নীল নদীকে দীর্ঘতম নদী বললেও

  • বন্ধুদের আঁকা ছবি

    newsimage

    নাম : তুবা আক্তার ফিহা শ্রেণী : পঞ্চম স্কুল : হলি উইলস স্কুল, নারায়ণগঞ্জ

  • বিস্ময় বালক কায়রান কাজী

    নাসরিন শওকত

    newsimage

    বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ১০ বছরের বিস্ময় বালক কায়রান কাজী। মাত্র ৯ বছর বয়সে

  • জোড়া বাবুই ও তালগাছের বন্ধুত্ব

    কৌশিক সূত্রধর

    মিনুদের ঘরটা বেশ পুরোনো। এদিকে বৈশাখ মাস কোনদিন যে ঝড়ে ঘরটা উড়িয়ে

  • ছড়া

    newsimage

    শরতের হাসি কবির কাঞ্চন শাপলা শালুক পদ্ম ফোটে ভাদ্র-আশ্বিন এলে সূয্যিমামা মেঘের সঙ্গে লুকোচুরি খেলে। স্বপ্ন নিয়ে

  • একটু হাসো...

    সারি বেঁধে হাটতে হাটতে একটি পিঁপড়া আরেকটি পিঁপড়াকে জিজ্ঞাসা করছে- বল তো,