• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২৫ রবিউল আওয়াল ১৪৪১

টাইমমেশিন

image

কার্তিকের শেষ। নতুন ধানে হবে নবান্ন উৎসব বাংলার ঘরে ঘরে। সর্বত্র খুশির

খেজুর রস

image

তোমরা সবাই জানো বাংলাদেশ ষড়ঋতুর দেশ। প্রতি দুই মাস পরপর এ ঋতুর

হেমন্তিকা

হেমন্তিকা এলো ফিরে ফুল ফসলের ঘ্রাণে আনন্দের এক বান ডেকেছে তাই তো সবার প্রাণে। মাঠের বুকে

‘হেমন্তে আজ’

হেমন্তে আজ মন হারিয়ে বন হারিয়ে পথ, ফুল পাখিরা খেলছে খেলা মেলছে সব

ভোরের শিশির

শিশির ভেজা দূর্বাঘাসে মন ময়ূরি হাঁসে, স্নিগ্ধ সকাল ভেজা কেশে আনমনা আবেশে! লাল হলুদে মেলামেশা উচ্ছ্বসিত আঁখি, দুষ্টু

পাকা ধানের খেলা

আয়রে দেলু আয়রে রুমি এক সাথে সব আয়, হেমন্তের ওই পাকা ধানে ডাকছে যেন তায়। হেমন্তে

সোনালি ফসল

মাঠে মাঠে এসে গেছে সোনালি ফসল তাই আজ কৃষকেরা খুবই চঞ্চল। পান চুন মুখে

‘শীত এলো রে’

শীত এলো রে খুকির গাঁয়ে, হরেক রকম সাজ- ঢাক ঢোলের বাজনা বাজে, ঐ

শীত সকালে

শীত সকালে গাছের শাখে হাসে কুসুম কুঁড়ি ঝিরিঝিরি হিমেল সমীর মন করে নেয় চুরি।

নবান্নের বাঁশি

আমন মাঠে কাকতাড়ুয়া দিচ্ছে কেমন হাসি! ঘাসের ডগায় জমল শিশির, দেখো গাঁয়ে আসি! পাড়ায় পাড়ায় খুশির

শীতের ছবি

সবুজ ঘাসে শিশির মেখে ধূসর রঙে প্রকৃতি এঁকে শীত এসেছে দেশে, হিমেল পরশ দখিন বায়ে হিম

শীতের জামা

আসছে নাকি শীতের বুড়ি হিম-কুয়াশার চাদর পরে বাবা দিলেন উলের জামা আমাকে খুব আদর করে। শীতের

ওদের শীতকাল

কুয়াশার ঠাণ্ডা চাদর গায়ে জড়িয়েছে গাছপালা পাখা গুটিয়ে বসে আছে পাখিরদল দিনের বেলা। হিংস্র

শীতের রাত

ফড়িং ডানায় সওয়ার হয়ে বিকেল গেল উড়ে- সাঁঝের ঠোটে লাল গোধূলী এলো চাদর মুড়ে। পাখির

হেমন্ত ঋতু

বছর ঘুরে ফিরে এলো হেমন্ত রূপ রানি অঙ্গে ভরা রূপের বাহার শুষ্ক বদনখানি। এই ঋতুতে