• banlag
  • newspaper-active
  • epaper

বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ সফর ১৪৪২, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

হুয়াওয়ে ওয়াই ৬ প্রো ২০১৯ মধ্যম বাজেটের ভালো স্মার্টফোন

সংবাদ :
  • মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

| ঢাকা , রোববার, ২১ এপ্রিল ২০১৯

image

সম্প্রতি দেশের বাজারে ওয়াইসিক্স প্রো ২০১৯ সংস্করণের স্মার্টফোন উন্মোচন করেছে হুয়াওয়ে। গত বছর বাজারে আসা ওয়াইসিক্স ২০১৮ ডিভাইসটির সঙ্গে এ স্মার্টফোনটির বড় পার্থক্য হলো নচ। তুলনামূলক সাশ্রয়ী দামে যারা নচ ডিসপ্লের হ্যান্ডসেট পেতে চান, তাদের জন্য ওয়াইসিক্স প্রো ২০১৯ একটি ভালো অপশন।

ফোনটি প্রথমবার দেখে সবার ভালোই লাগবে। এর নচের ঠিক উপরে থাকা বেজেলে রয়েছে নোটিফিকেশন লাইট, ফোনের পেছনে বাম কোনায় রয়েছে ক্যামেরা ও ফ্ল্যাশ, ডানে রয়েছে ভলিউম আপ-ডাউন ও পাওয়ার বাটন, বামে রয়েছে কার্ড সøট, এতে দুটি সিম এবং একটি মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যায়। উপরের দিকে রয়েছে ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক। নিচের দিকে রয়েছে মাইক্রো ইউএসবি, প্রাইমারি মাইক্রোফোন ও স্পিকার। স্পিকারের সাউন্ডের মান বেশ ভালো।

ফোনটি অ্যাম্বার ব্রাউন, মিডনাইট ব্ল্যাক ও স্যাফায়ার ব্লু এই তিনটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে। অ্যাম্বার ব্রাউন সংস্করণটির ব্যাক প্যানেলে এক ধরনের লেদার টেক্সার দেয়া হয়েছে। যে কারণে ডিভাইসটিকে প্রিমিয়াম ও স্ট্যান্ডার্ড মনে হবে। অন্যদিকে ব্ল্যাক ও ব্লু রঙের ডিভাইস দুটির ব্যাক প্যানেল পলিকার্বোনেটেড। এক বছরের ওয়ারেন্টিসহ ফোনটির অ্যাম্বার ব্রাউন সংস্করণের দাম ১৩, ৫৯৯ টাকা এবং মিডনাইট ব্ল্যাক ও স্যাফায়ার ব্লু সংস্করণের দাম ১২,৯৯৯ টাকা।

ফোনটির ৬.০৯ ইঞ্চি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে প্যানেলের ওপরের অংশের মাঝ বরাবর আছে ডিউড্রপ নচ। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ১২ ন্যানোমিটারের কোয়াডকোর মিডিয়াটেক এমটি৬৭৬১ প্রসেসর। গেইমিং সুবিধা দিতে রয়েছে পাওয়ারভিআর জিপিইউ। ৩ গিগাবাইট র‌্যাম ও ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির সংস্করণে মিলবে ডিভাইসটি। ৬৪ ও ১২৮ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরির সংস্করণেও পাওয়া যাবে। মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করে এটি ৫১২ গিগাবাইট পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে। ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েড পাই এর পাশাপাশি রয়েছে হুয়াওয়ের নিজস্ব ইএমইউআই ৯.০ অপারেটিং সিস্টেম। গ্রাহকদের বাড়তি সুবিধার জন্য এতে ব্যবহার করা হয়েছে সিম্পল গেসচার ন্যাভিগেশন সুবিধা।

ফোনটির পেছনে রয়েছে এফ/১.৮ অ্যাপাচারের ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও এলইডি ফ্ল্যাশ, যা দিয়ে ৩০ এফপিএসে এইচডি ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। ক্যামেরায় রয়েছে এআই প্রযুক্তি। তবে দিনের আলোয় ছবির মান ভালো, লাইট কম পেলে ছবির ডিটেইল কিছুটা কমে যায়। ফোনটির সামনে রয়েছে এফ/২.০ অ্যাপাচারের ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও ফ্ল্যাশ। এটি ব্যবহার করে ভালো সেলফি তোলা সম্ভব। ফ্ল্যাশ থাকায় রাতের অন্ধকারেও ভালো ছবি তোলা যাবে।

ফোনটিতে রয়েছে ৩০২০ মিলি অ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি। এতে স্বাভাবিক ব্যবহারে একদিন ব্যাকআপ দেবে। খুব বেশি ব্যবহারে অর্থাৎ টানা ইন্টারনেট বা ব্লু-টুথ চালু থাকলে ৫-৭ ঘণ্টা ব্যাকআপ পাওয়া যাবে। ফেনটিতে নেই কোন ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। এতে নিরাপত্তা ফিচার হিসেবে ফেস আনলক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রাখা হয়নি। তবে বাজারে এ বাজেটের প্রায় সব ব্র্যান্ডের হ্যান্ডসেটে নিরাপত্তা ফিচার হিসেবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে। ফেস আনলক প্রযুক্তি অন্ধকারে ঠিক মতো কাজ করে না, ফলে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকলে ব্যবহারকারীদের জন্য ভালো হতো।